স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেসও পার পাবে না৷ ধর্মঘটের সেকেন্ড ইনিংসে কোনও বাড়াবাড়ি করলে যোগ্য জবাব তারাও পাবে৷ রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী তথা উত্তর চব্বিশ পরগনার তৃণমূল জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের হুমকির পর প্রদেশ কংগ্রেসও পাল্টা হুমকি দিল৷

শ্রমজীবী মানুষের নূন্যতম মাসিক ছয় হাজার টাকা পেনশন, শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠা, সমকাজে সমবেতনের দাবিতে ৮ ও ৯ জানুয়ারি, দুদিন দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল বাম শ্রমিক সংগঠনগুলি। কংগ্রেসও তাদের সমর্থন করেছে৷ এরাজ্যে ধর্মঘটীদের দাবি, বাংলার মানুষ ধর্মঘটে সাড়া দিয়েছেন৷

কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেন, সারা দেশের দুই-তৃতীয়াংশ অংশে ধর্মঘটের ভাল প্রভাব পড়েছে৷ ধর্মঘট করে দেশের শ্রমিকরা প্রমাণ করে দিয়েছেন মোদী সরকার শ্রমিক-বিরোধী সরকার৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এত চেষ্টা করেও এরাজ্যে ধর্মঘট আটকাতে পারেননি৷ কেন তিনি এই ধর্মঘটে মোদী সরকারকে সমর্থন করলেন সেটা স্পষ্ট নয়৷ তিনি বাংলার শ্রমিকদের মনের কথা বুঝলেনই না৷

এদিন সকাল থেকেই নেতাদের সঙ্গে কর্মীরাও নেমে পড়েছিলেন রাস্তায়। রেল, সড়ক এমনকী জলপথ পরিবহণ আটকাতেও দেখা যায় সিপিএম তথা বাম কর্মীদের। তবে ৯ তারিখ ধর্মঘট করতে গেলে কংগ্রেস-সিপিএমকে উত্তম-মধ্যম দেওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস৷

মঙ্গলবার জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “এটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলা৷ আমরা ছেলেদের তৈরি রাখছি৷ কাল বনধ করতে নামলে উত্তম-মধ্যম দেওয়া হবে।” জ্যোতিপ্রিয়কে পাল্টা হুমকি দিয়েছেন প্রদীপ ভট্টাচার্য৷ তিনি বলেন, “জ্যোতিপ্রিয় উত্তম-মধ্যম দিলে বাংলার মানুষও তাদের ছেড়ে দেবে না৷ তারাও মধ্যম-উত্তম দেবে৷”