স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: মনোনয়নপত্র জমা দিলেন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর (তফঃ) লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী নারায়ণ চন্দ্র খাঁ। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাতে গোনা কয়েক জন কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে বাঁকুড়া জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসেন তিনি।

বুধবার সিপিএম, তৃণমূল, বৃহস্পতিবার বিজেপি, এমনকি প্রথম দিন মঙ্গলবার এস.ইউ.সি.আই এর প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় যেভাবে উৎসাহী কর্মী সমর্থকদের ভীড় লক্ষ্য করা গেছে কংগ্রেসের বেলায় তার ছিঁটে ফোঁটাও ছিলনা। এই পরিস্থিতিতে জেলায় কংগ্রেসের সাংগঠনিক শক্তি কতোটা তা নিয়েই জেলা রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন : মুসলিম হয়েও ভোটে লড়তে ফের হিন্দু হলেন উমরাভ

এদিন বিষ্ণুপুরের কংগ্রেস প্রার্থী নারায়ণ চন্দ্র খাঁ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নিজের জয়ের ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী জানিয়ে বলেন, এরপর কে জিতবে একমাত্র ঈশ্বরই বলতে পারবেন। ‘কংগ্রেস প্রার্থী নিরুদ্দেশ’ এরকম একটা অভিযোগ উঠছে। কি বলবেন? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে নারায়ণ চন্দ্র খাঁ বলেন, আমি আমার এলাকায় জোরদার প্রচার চালাচ্ছি। আর যদি নিরুদ্দেশই থাকি তাহলে এখানে আজ এলাম কি করে সে নিয়ে সাংবাদিকদের দিকে উল্টে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন।

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারে জনবিরোধী নীতিগুলি নির্বাচনী প্রচারে প্রাধান্য দিচ্ছেন জানিয়ে বলেন, এবার বিষ্ণুপুরে ‘চতুর্মূখী’ প্রতিদ্বন্দিতা হবে। কে জিতবেন ঠিক করবে জনতা জনার্দণ বলেই তিনি জানান।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.