নয়াদিল্লি : দেশজুড়ে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। অতীতের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে দিচ্ছে রাজধানীর দৈনিক সংক্রমণের হার। যারফলে এবার সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙতে শুধুমাত্র নাইট কার্ফু নয়, সোমবার ১৯ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত এই সাতদিন রাজধানী শহরকে সম্পূর্ণভাবে কার্ফু জারি রাখার কথা ঘোষণা করেছেন আপ সুপ্রিমো তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

সোমবার সকালে একটি প্রেস বিবৃতিতে এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। এদিকে সারাদেশের পাশাপাশি রাজধানী দিল্লিতেও দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ভেঙে ফেলছে অতীতের সব রেকর্ড। প্রতিদিনই হু-হু করে বাড়ছে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা। দিল্লিতে দৈনিক করোনা সংক্রমিত হচ্ছেন প্রায় ২৫,৪৬২ জন।

যারফলে ফের নতুন করে বিপর্যয় এড়াতে এবং করোনা সংক্রমণের চেন ভাঙতে নতুন করে এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। এর আগেও করোনা রুখতে দিল্লিতে নাইট কার্ফু, সাপ্তাহিক কার্ফু লাগু ছিল।

গত ১৫ এপ্রিল জারি করা করোনার নতুন গাইডলাইন অনুযায়ী, অডিটোরিয়াম, শপিংমল, জিম এবং স্পা পুরোপুরি বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল ৷ তবে ফের নতুন কোনও কোভিড সংক্রান্ত প্রোটোকল জারি করা হবে কিনা সেই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু জানানো হয়নি দিল্লি সরকারের তরফে।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘন্টায় ফের এক নয়া রেকর্ড গড়েছে রাজধানী দিল্লির সংক্রমণ। এই সময়ের মধ্যে দিল্লিতে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ৪৬২। অবস্থা এমন যে, প্রতি ঘন্টায় সংক্রমিত হয়েছে এক হাজারেরও বেশি মানুষ। গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে একদিকে যেমন ২৫ হাজার ৪৬২ জন মানুষ সংক্রামিত হয়েছে, তেমনই এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৬১ জনের।কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে আবার আজকে বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

অপরদিকে দেশের নানা প্রান্ত থেকে অক্সিজেন ঘাটতির খবর আসছে। কেন্দ্র সরকার নয়টি নির্দিষ্ট শিল্প বাদ দিয়ে অন্যান্য সমস্ত শিল্পক্ষেত্রে অক্সিজেন সরবরাহ নিষিদ্ধ করেছে। ২২ শে এপ্রিল থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

এছাড়াও স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লক্ষ ৪৪ হাজার ১৭৮ জন। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যা অনেকটাই কম। যা চিন্তা বাড়াচ্ছে চিকিৎসক থেকে বিশেষজ্ঞদের। পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ১ কোটি ২৯ লক্ষ ৩২৯ জন। গোটা দেশে শুরু হয়েছে টিকাকরণ কর্মসূচি। এখনও পর্যন্ত ১২ কোটি ৩৮ হাজার ৫২ লক্ষ ৫৬৬ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.