স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ধারাবাহিক ভাবে কোনও না কোনও গ্রাহকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ক্রমাগত টাকা উঠে চলেছে৷ বেশ কিছুদিন থেকেই গ্রাহকদের থেকে এমনই অভিযোগ পাচ্ছিল শহরের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক৷ কিন্তু কে বা কারা এই কাণ্ড-কারখানার সঙ্গে জড়িত তা বুঝে উঠতে পারছে না ব্যাংক কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু করে পুলিশ৷

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, ওই ব্যাংকের প্রায় ১৫ জন গ্রাহক একই অভিযোগ নিয়ে হাজির হয়েছিলেন কর্তৃপক্ষের কাছে৷ তাঁদের দাবি ছিল, তাঁদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কিছুদিন ধরে টাকা তুলে নেওয়া হচ্ছে৷ কিন্তু কে বা কারা করছে সেটা তাদের বোধগম্য হচ্ছে না৷ এই অভিযোগ পাওয়ার পরেই সচেতন হয়েছিল ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকটি৷ তবে তাতেও লাভ হয় নি৷ এরপরও বেশ কিছুজন গ্রাহকের থেকে একই অভিযোগ পায় তারা৷

এদিকে এই বিষয়ে গড়িয়াহাট থানায় অভিযোগ জানালে পুলিশ গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেয়৷ তবে পুলিশের অনুমান ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের প্রধান শাখা রয়েছে দিল্লিতে৷ সেখানেই কোনও কারণে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টগুলি হ্যাক হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বলে মনে করছেন তাঁরা৷ তবে এখনও পর্যন্ত এই ঘটনার কোনও সঠিক কারণ জানা যায়নি৷ গোটা বিষয়টি অনুমানের ভিত্তিতে খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷

প্রসঙ্গত, ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট বা এটিএম থেকে টাকা তুলে নেওয়ার ঘটনা বারেবারে প্রকাশ্যে এসেছে৷ সেক্ষেত্রে বহুবারই অভিযান চালিয়ে সাফল্যও পেয়েছে পুলিশ বাহিনী৷ তবে এই বার শহরের একটি ব্যাংক নয় একাধিক ব্যাংক থেকে এই অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশের কপালে ভাঁজ পড়েছে৷ মনে করা হচ্ছে কোনও বড়সড় চক্র কাজ করছে এই ঘটনার পিছনে৷ ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে গড়িয়াহাট থানার পুলিশ৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও