কলকাতা: পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের ‘অপসারণ’ নিয়ে গুজব ছড়াল শহর কলকাতায়৷ বুধবার সন্ধ্যা থেকে রাজীব কুমারের ‘অপসারণ’ নিয়ে ঝড়ের গতিতে গুজব ছড়িয়ে পড়ে গোটা রাজ্যে৷ গুজবের ঝড়ে উত্তাল হতে শুরু করে রাজ্য-রাজনীতির ময়দান। এখানেই শেষ নয়, পরবর্তী পুলিশ কমিশনারকে হতে পারেন, তা নিয়েও শুরু হয়ে যায় জল্পনা। কিন্তু পরে খবর নিয়ে জানা যায়, এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন বুধবার রাত পর্যন্ত কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি। এদিন রাতেই মুখ্যসচিব বাসুদেব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন, এখনও পর্যন্ত এমন কোনও নির্দেশিকা নির্বাচন কমিশন পাঠায়নি৷অপসারণ সংক্রান্ত এমন কোনও বৈঠকও দিল্লিতে হয়নি বলেও জানান তিনি৷

অন্যদিকে, নয়াদিল্লি থেকে সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের পাঠানো খবরের ভিত্তিতে এদিন বাংলা সংবাদ মাধ্যমের একটি বড় অংশ রাজীব কুমারের ‘অপসারণ’ খবর সম্প্রচারিত করতে শুরু করে৷ সংবাদ সম্প্রচারিত হওয়ার পর সংবাদ সংস্থা এনআইএ-র পক্ষ থেকে রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ জানিয়ে দেওয়া হয়, এই খবর ভুল, তাই তারা ওই সংবাদ প্রত্যাহার করে নিচ্ছে৷ এদিন Kolkata24x7.com এনআইএ-র টুইটারে খবর আপডেটের ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশ করে৷ রাজীব কুমারের ‘অপসারণ’ নিয়ে চূড়ান্ত বিভ্রান্তির পরিবেশ তৈরি হওয়ার পর সেই সংবাদটি মুছে ফেলে এএনআই৷ পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, Kolkata24x7.com প্রকাশিত রাজীব কুমারের ‘অপসারণ’-র খবরটি তুলে নেওয়া হবে৷সেই মতো সংবাদি তুলে নেওয়া হয়৷এদিনের এই অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমরা দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.