বেঙ্গালুরু: কগনিজেন্ট কর্মীদের ছাঁটাই করছে বলে চাকরি গিয়েছে এমন কর্মীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ায় নড়েচড়ে উঠেছে কর্ণাটক স্টেট আইটি/আইটিইএস এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (কে আই টি ইউ)। এই ইউনিয়ন জানিয়ে দিয়েছে, ওই সংস্থার বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ করা হবে। পাশাপাশি এই ইউনিয়ন রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করার জন্য।একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদপত্রের এই বিষয়ে প্রতিবেদন বের হয়েছে।

এই শ্রমিক সংগঠনের কাছে অভিযোগ এসেছে এই বহুজাতিক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাটি তার বেঙ্গালুরু চেন্নাই এবং অন্যান্য শহরে কগনিজেন্ট কর্মীদের ‌ বাধ্য করছে যাতে তারা পদত্যাগ করে।

কেআইটিইউ‌ সম্পাদক নিদিয়াঙ্গা জানিয়েছেন, বেশ কিছু ভুক্তভোগী কর্মীরা তাদের ইউনিয়নের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের সমস্যার কথা জানিয়েছে। তার ফলে ইউনিয়ন উদ্যোগী হয়েছে কগনিজেন্ট এবং তার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে।

অন্যদিকে কগনিজেন্টের মুখপাত্র অবশ্য জানিয়েছেন, পারফরমেন্স ম্যানেজমেন্ট হল তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার ক্ষেত্রে স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। তিনি ব্যাখ্যা করেন,‌ সম্প্রতি তৃতীয় পক্ষ যে অভিযোগ আনছে তা কোনরকম তথ্যের উপর ভিত্তি করে নয়। মে অভিযোগ উঠেছে তার সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন।

নিদিয়াঙ্গার বক্তব্য, শ্রম আইন অনুসারে একশোর বেশি কর্মী আছে এমন সংস্থা কর্মী ছাঁটাই করতে গেলে শ্রমদপ্তরের অনুমোদন নেওয়া দরকার। তিনি আরো জানান, এক্ষেত্রে‌‌ ঘুরপথে ছাঁটাই করা হচ্ছে পদত্যাগ করতে বাধ্য করার মাধ্যমে। এইজন্য কর্মীদের প্রতি তার পরামর্শ জোর করে পদত্যাগ করালে তখন যেন তারা তা না করেন।

প্রসঙ্গত গত মাসে চেন্নাইতে অল ইন্ডিয়া ফোরাম ফর আইটি/আইটিইএস এমপ্লয়িজ সেখানকার লেবার কমিশনকে চিঠি দিয়েছিল। সেই চিঠিতে ওই ইউনিয়নের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল সংস্থাটির যেসব কর্মীদের প্রজেক্টে কাজ ছিল না তাদের জোর করে পদত্যাগ করাচ্ছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ