বেলগ্রেড: দীর্ঘ লকডাউনে পিছিয়ে পড়া মানুষের সাহায্যার্থে ইতিবাচক কিছু উদ্যোগ গ্রহণের চেষ্টা করেছিল জকোভিচ। পরিবর্তে যেভাবে সমালোচনায় তাঁকে বিদ্ধ করা হচ্ছে সেটা একেবারেই অনুচিৎ। কঠিন সময়ে প্রিয় ছাত্রের পাশে এভাবেই দাঁড়ালেন নোভাক জকোভিচের কোচ তথা প্রাক্তন উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন গোরান ইভানিসেভিচ।

উল্লেখ্য, সার্বিয়ার রাজধানী শহর বেলগ্রেডে বিশ্বের পয়লা নম্বর নোভাক জকোভিচের ডাকে সাড়া দিয়ে সম্প্রতি তাঁর চ্যারিটি টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন প্রথম সারির বেশ কয়েকজন টেনিস তারকা। ক্রোয়েশিয়ার জাদারে টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই একে একে করোনায় আক্রান্ত হন অংশগ্রহণকারী গ্রিগর দিমিত্রভ, বোর্না করিচ, ভিক্টর ত্রোইস্কি এবং খোদ নোভাক জকোভিচ।

গত রবিবার বুলগেরিয়ান টেনিস তারকা দিমিত্রভ নিজেকে করোনা পজিটিভ হিসেবে ঘোষণা করার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জকোভিচকে নিয়ে শুরু হয়ে যায় সমালোচনা। আক্রান্তের তালিকাটা দীর্ঘ হওয়ায় আর বেশি করে সমালোচনায় বিদ্ধ হচ্ছেন বিশ্বের পয়লা নম্বর। করোনা উদ্বেগের মধ্যে দর্শক প্রবেশে অনুমতি প্রদান করে এমন একটি টুর্নামেন্ট আয়োজনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন সবাই। ছাত্রের সমালোচনায় মুখ বুজে থাকেননি কোচ ইভানিসেভিচ। নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জকোভিচের কোচ জানিয়েছেন, ‘এখন সবাই নিজেদের বুদ্ধিমান হিসেবে প্রতিপন্ন করছে এবং নোভাককে আক্রমণ করছে।

কিন্তু নোভাক আসলে একটা মহৎ উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল। একটা মানবিক উদ্যোগ। আমরা তিনমাসের জন্য লকডাউনে ছিলাম। আর সেই লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়াতেই আদ্রিয়া ট্যুর আয়োজন হয়েছিল। আমন্ত্রিত প্লেয়ারদের উপস্থিতিতে অনুকূল পরিবেশেই ভালো টেনিসের সাক্ষী হয়েছিলাম আমরা। সার্বিয়া এবং ক্রোয়েশিয়া সরকারের সমস্তরকম গাইডলাইন মেনেই সবকিছু আয়োজিত হচ্ছিল।’

তবে টুর্নামেন্ট চলাকালীন অংশগ্রহণকারীদের পার্টির একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ ভাইরাল হয়েছে। সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং উপেক্ষা করে প্লেয়ারদের পার্টিতে মত্ত হওয়ার ঘটনায় সুর চড়িয়েছেন অধিকাংশ। সেই প্রসঙ্গে ইভানিসেভিচ বলেছেন, ‘হয়তো সেটা করা উচিৎ হয়নি। কিন্তু ক্লাবে সবাই ব্যক্তিগত ভাবে এসেছিল। আমরা কাউকে আমন্ত্রণ করিনি। কেউ যদি তাদের মধ্যে আক্রান্ত থেকে থাকেন তাহলে সেটা কীভাবে বুঝবো?’

যদিও সব দেখেশুনে সোমবারই ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান টেনিস তারকা নিক কিরগিওস। মঙ্গলবার জকোভিচের করোনা আক্রান্তের খবর শুনে সার্বিয়ানকে পুনরায় একহাত নেন তিনি। গোটা বিষয়টিকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে উল্লেখ করলেন তিনি।

টুইটে কিরগিওস লেখেন, ‘কোভিড১৯ আক্রান্ত সকল প্লেয়ারের জন্য প্রার্থনা করছি। যেটা হয়েছে সেটা একটা দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় এবং নির্বুদ্ধিতা।’ সোমবার ক্ষোভ উগড়ে জোকারকে ‘বোকা’ বলে সম্বোধন করেছিলেন কিরগিওস। অজি তারকা বলেন, ‘এগুলো সবই প্রোটোকল না মেনে চলার ফল। এটা কোনও মজার বিষয় নয়।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ