স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: সৈকত শহরের পর্যটনকে কাজে লাগিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চেয়েছিলেন পুঁজি টানতে৷ সেই লক্ষ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের দিঘায় ৭০ কোটি ২৬ লক্ষ টাকা খরচে গড়ে উঠেছে আন্তর্জাতিক মানের কনভেনশন সেন্টার৷

পাঁচ একর জমির ওপর দিঘায় আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার নির্মাণের কাজ শেষ পর্যায়ে৷ এখন জোরকদমে চলছে ‘ফিনিশিং টাচ’ এর কাজ। তৎপরতার কারণ, আগামী ২০ অগাষ্ট কনভেনশন সেন্টারের দ্বারোদঘাটনে আসছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷

দিঘাকে গোয়া হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন ছিল মমতার৷ সেই লক্ষ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপও নেয় রাজ্য সরকার৷ নেওয়া হয় একাধিক প্রকল্প৷ সৌন্দর্যায়নের দিকে নজর দেওয়া হয়৷ আগের থেকে দিঘায় পর্যটকদের আনাগোনাও বেড়ে যায় বেশ কয়েক গুণ৷ মুখ্যমন্ত্রীর পরিকল্পনাতেই এই আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার তৈরির কাজ শুরু হয়৷ এটি তৈরি হচ্ছে বাংলা-ওড়িশার সীমান্ত উদয়পুরের কাছে ফোরশোর রোডের পাশে দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের পাঁচ একর জমিতে।

আরও পড়ুন : তুঘলকি শাসন চালাচ্ছেন মমতা, এবার সেই কথা দিদির কাননের মুখে

২০১৭ সালের ১১ই জুলাই এই কনভেনশন সেন্টারের শিলান্যাস করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। গত ডিসেম্বরে জেলা সফরে এসে দিঘার প্রশাসনিক বৈঠকে দ্রুত কনভেনশন সেন্টার নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করার পাশাপাশি অন্যান্য নানা বিষয়ে তিনি নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিলেন জেলা প্রশাসনকে।

রাজ্য নগরোন্নয়ন দফতরের তত্বাবধনায় এই সেন্টারের যাবতীয় কাজ ইতিমধ্যে শেষ করে ফেলেছে দায়িত্বে থাকা ডিএমপি নির্মাণ প্রাইভেট লিমিটেড সংস্থা। ২০ জানুয়ারির উদ্বোধনের আগে মমতার দিঘা সফরকে কেন্দ্র করে সাজো সাজো রব সৈকত শহরে৷

আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্স সেন্টারে এক হাজার বর্গমিটারের প্রদর্শনশালা, সেমিনার হল, ভিআইপি লাউঞ্জ ও এক হাজার আসন বিশিষ্ট অডিটোরিয়াম থাকছে। সেই সঙ্গে থাকছে চারতারার আতিথেয়তার হাতছানি। যেখানে সুইমিং পুল, স্পা ব্লক, চিলড্রেন্স পার্ক, জিম, ব্যাঙ্কোয়েট হলের পাশাপাশি থাকছে ককটেল স্পা ও লা জবাব রসনাতৃপ্তির রসদ।

দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের সদস্য এবং পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিষদের সভাধিপতি দেবব্রত দাস বলেন, রাজ্যের পর্যটন বিকাশে মুখ্যমন্ত্রী বরাবরই দিঘাকে আলাদাভাবে নজরে রেখেছেন৷ দিঘাকে বিশ্বমানের গড়ে তোলার লক্ষ্যে এই কনভেনশন সেন্টার গড়ার পরিকল্পনা নিয়ে ছিলেন তিনি।