স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: টাকা নিয়ে ছাত্র ভরতি সহ বিভিন্ন দুর্নীতিতে অভিযুক্ত রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্র৷ বিরোধীরাও নানাভাবে কটাক্ষ করেছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে৷ বৃহস্পতিবার নবান্নে বিভিন্ন দফতরের মন্ত্রী-আমলাদের সঙ্গে বৈঠকে শিক্ষা দফতরের প্রতি সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সূত্রের খবর, বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘শিক্ষা দফতর বাস্তু ঘুঘুর বাসা হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ আমার কাছে খবর আছে মন্ত্রীর কথা মানা হচ্ছে না৷’’

বৈঠকের মাঝে এই বিষয় নিয়ে কথা বলতে যান শিক্ষা দফতরের বিশেষ সচিব অরুণ সেনগুপ্ত৷ দফতর নিয়ে তিতিবিরক্ত মমতা এদিন অরুণ সেনগুপ্তকেও একহাত নেন৷ সূত্রের খবর, শিক্ষা দফতরের এই বিশেষ সচিবকে মুখ্যমন্ত্রী ধমকের সুরে বলেন, ‘‘আপনি থামুন, মন্ত্রী যা বলছে সেটা শুনুন৷’’ মুখ্যমন্ত্রী জানতে চান, কেন শিক্ষকরা ঠিকমতো ক্লাস নিচ্ছেন না৷ স্কুল পরিদর্শদরের ভূমিকা নিয়েও ক্ষুব্ধ হয়েছেন মমতা৷ এই বিষয়গুলি গুরুত্বের সঙ্গে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি৷

শিক্ষাক্ষেত্র নিয়ে কার্যত জেরবার মুখ্যমন্ত্রী৷ যেভাবে একের পর দুর্নীতি প্রকাশ্যে এসেছে তাতে রাজনৈতিক ময়দানে শাসক দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে যথেষ্ট৷ শিক্ষামন্ত্রীর একাধিক নির্দেশেও কোনও ভাবে থামানো যায়নি ছাত্র নেতাদের৷ দুর্নীতিতে জড়িয়েছে ছাত্র নেতারা৷ দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসায় সরিয়ে দেওয়া হয়েছে টিএমসিপির সভানেত্রীকেও৷ শেষ পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে৷

এদিনের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতর নিয়েও সরব হন৷ দফতরের প্রধান সচিব মনোজ পন্থকে উদ্দেশ্য করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘দফতরের বেশ কয়েকজন বিএলআরও বদমায়েশি করছে৷ সেটা আপনি গুরুত্বের সঙ্গে দেখুন৷’’এছাড়াও রাইস মিলের দুর্নীতি নিয়ে ডিজিকে কড়া পদক্ষেপ করার জন্য নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷