কলকাতা: বিশ্বে মহামারির আকার নিয়েছে করোনা ভাইরাস৷ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস৷ তবে অন্যান্য দেশের তুলনায় এখনও পর্যন্ত ভারতে সেই সংখ্যাটা কম৷

ভারত- প্রথম সপ্তাহ -০৩জন,দ্বিতীয় সপ্তাহ -২৪ জন,তৃতীয় সপ্তাহ -১০৫ জন৷ নিউইয়র্ক- প্রথম সপ্তাহ -০২ জন,দ্বিতীয় সপ্তাহ -১০৫জন,তৃতীয় সপ্তাহ -৬১৩জন৷

ফ্রান্স- প্রথম সপ্তাহ -১২জন,দ্বিতীয় সপ্তাহ -১৯১ জন, তৃতীয় সপ্তাহ -৬৫৩ জন৷ চতুর্থ সপ্তাহ – ৪৪৯৯ জন৷ ইরান- প্রথম সপ্তাহ -০২জন,দ্বিতীয় সপ্তাহ -৪৩ জন,তৃতীয় সপ্তাহ -২৪৫ জন৷ চতুর্থ সপ্তাহ – ৪৭৪৭ জন৷ পঞ্চম সপ্তাহ – ১২৭২৯ জন৷

ইতালি- প্রথম সপ্তাহ -০৩জন, দ্বিতীয় সপ্তাহ -১৫২ জন,তৃতীয় সপ্তাহ -১০৩৬ জন৷ চতুর্থ সপ্তাহ -৬৩৬২ জন৷ পঞ্চম সপ্তাহ – ২১১৫৭ জন৷ স্পেন- প্রথম সপ্তাহ -০৮ জন, তৃতীয় সপ্তাহ -৬৭৪ জন৷ চতুর্থ সপ্তাহ -৬০৪৩ জন৷

তবে ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে ৩ লক্ষ ২৪ হাজার মানুষের স্ক্রিনিং করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই পাশাপাশি আরও ৫ হাজার ৫৯০ জন মানুষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে৷ একইসঙ্গে করোনা মোকাবিলায় ২০০ কোটি টাকার তহবিল গড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

সোমবার করোনা নিয়ে নবান্নে বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘অযথা করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। তবে গুজবে কান দেবেন না। আত্মসন্তুষ্টি থাকা ঠিক নয়।’ এদিন ইতালি, আমেরিকা-সহ একাধিক দেশের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খতিয়ান পেশ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

করোনার সংক্রমণ রুখতে ইতিমধ্যেই কল সেন্টার চালু করেছে রাজ্য সরকার। কল সেন্টারে ইতিমধ্যেই ৫ হাজার ফোন এসেছে। করোনা নিয়ে কেউ জানতে চাইলে তাঁকে পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। করোনার সংক্রমণ রুখতে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলিকেও জমায়েত এড়াতে অনুরোধ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সিনেমা হল, রিয়েলিটি শোগুলিও ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখতে আবেদন জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।