স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিধানসভা নির্বাচনে ধাক্কা দেওয়ার পর এবার লোকসভা নির্বাচনে দেশকে গেরুয়ামুক্ত করতে ব্রিগেডে একজোট হয়েছে মোদী সরকার বিরোধী বিভিন্ন শিবির৷ তৃণমূল সুপ্রিমোর এই ব্রিগেডকে তাই মহারণ হিসেবেই দেখছে৷ এবং সেখান থেকে বিরোধী শিবিরগুলির তাবড় তাবড় ব্যক্তিত্বরা দিচ্ছে মোদীকে হারিয়ে দেশ বাঁচানোর, গণতন্ত্র রক্ষার বার্তা৷ আর মমতার এই ব্রিগেডের প্রশংসা করে সেই মঞ্চ থেকে তেমনই বার্তা দিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু৷

এই মহাজোটের ব্রিগেড থেকে বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে তিনি বলেন, দুর্নীতিমুক্ত দেশ, সবকা সাথ সবকা বিকাশ, নোটবাতিল, ডিজিটাল ইন্ডিয়া, স্মার্ট সিটি, কালো টাকা ফেরত নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার শুধু স্লোগানই দিয়েছে, কার্যক্ষেত্রে তার সুষ্ঠু বাস্তবায়ন হয়নি৷ বিশেষ করে কৃষকদের দুরাবস্থায় আলোকপাত করে তিনি জানান, যে কৃষকদের আর্থিক অবস্থার উন্নতির কথা মোদী বলেছিলেন, তা হয়নি৷ তাদের সঙ্গে প্রতারণা হয়েছে, আর তাই তারা আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে৷ কৃষকদের সমস্যা নিয়ে, তাদের ইস্যু নিয়ে মোদীর সরকার মোটেই চিন্তিত নয় বলে তাঁর অভিযোগ৷

শুধু তাই নয়, তিনি এর পাশাপাশি তুলে আনেন, নোটবাতিল প্রসঙ্গ৷ জানান, রাতারাতি নোটবাতিলের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী৷ আর তারপরই বন্ধ হয়ে যায় এটিএম৷ ব্যাংকে টাকা নিতে গিয়ে হয়রানি৷ অথচ কালো টাকা ফেরত আসেনি৷ এসব এক চূড়ান্ত দুর্নীতি বলে জানান তিনি৷ আর এই দুর্নীতির মধ্যে জিএসটি থেকে এমএসপি (ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বা মিনিমাম সাপোর্ট প্রাইস) নিয়ে প্রতারণারও উল্লেখ করেন তিনি৷ অর্থনৈতিক উন্নয়নের যে প্রতিশ্রুতি মোদী সরকার দিয়েছিলেন তা আদৌ হয়েছে কি, প্রশ্ন তুলে তিনি পেট্রল-ডিজেল-গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি তিনি৷ রাজ্যবাসীই সমস্যার পড়েছে বারবার৷

তাই তিনি উপস্থিত জনতার দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, আপনারা কি মোদী আর অমিত শাহকে দেখতে চান? সেই সঙ্গে দেশের জন্য চিন্তা প্রকাশ করে তিনি গণতন্ত্র রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান৷ আর তাই অমরাবতীতে আরও একটি মহাজোটের উপস্থিত থাকার জন্য উপস্থিত নেতা-নেত্রীদের আমন্ত্রণ জানান৷