ক্যানিং: দুই পরিবারের মধ্যে বিবাদের জেরে সংঘর্ষে জখম হলেন চারজন। আহতদের মধ্যে এক মহিলা ও রয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিং থানার তালদি পূর্ব শিবনগর গ্রামে। আহতদেরকে আশঙ্কা জনক অবস্থায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য। এ বিষয়ে উভয়পক্ষই ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

গত ১৩ অক্টোবর পূর্ব শিবনগর গ্রামের বাসিন্দা পেশায় মাছ ব্যবসায়ী আমির আলী গাজীর পুকুরে বিষ ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল প্রতিবেশী মনিরুদ্দিন মোল্লার বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে বুধবার বিকেলে বাড়িতে থানা থেকে একটি মামলার কাগজ যায় মনিরুদ্দিনের বাড়িতে।

অভিযোগ তারপর থেকেই মনিরুদ্দিনের পরিবার প্রতিবেশী ওই মাছ ব্যবসায়ী ও তার পরিবারকে দেখে গালিগালাজ করতে থাকেন। তখন ওই আমির আলী গাজী প্রতিবাদ করলে বচসা বেঁধে যায় দুপক্ষের মধ্যে ও পরে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

ঘটনার খবর পেয়ে ক্যানিং থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের কে উদ্ধার করে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে পাঠায় চিকিৎসার জন্য।যদিও আহত প্রতিবেশী মনিরুদ্দিন মোল্লার পরিবারের দাবি তাঁদের মেয়ের বিয়ের সময় নিমন্ত্রণ করা নিয়ে একটি ঝামেলা হয় আমির আলী গাজীর পরিবারের সঙ্গে।

সেই জন্য ওই মাছ ব্যবসায়ী পরিবারের কেউ আসেননি অনুষ্ঠানে। তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা পুকুরে বিষ দেওয়ার অভিযোগ তুলে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন তারা। এ বিষয়ে দুই পক্ষই ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন, অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.