স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা : ভাড়া নিয়ে বচসার জেরে পর্যটক ও টোটো চালকের সংঘর্ষে চাঞ্চল্য ছড়ায় দিঘায়। রবিবার বিকেলে পর্যটক ও টোটো চালকদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের প্রায় ১০ গুরুতর জখম হয়েছে। পর্যটক ও টোটোচালকদের পাশাপাশি আহত হয়েছেন হোটেল কর্মীও৷

এই ঘটনায় এক পর্যটক বন্দুক বের করে ভয় দেখান বলে অভিযোগ টোটো চালকদের। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দিঘা, মোহনা থানা এবং রামনগর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

সূত্রের খবর, উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ থেকে প্রায় ১২৫ জন পর্যটকের একটি দল নিউ দিঘার ২টি হোটেলে এসে ওঠে। রবিবার বিকেলে তাঁদের মধ্যে কয়েকজন উদয়পুর যাওয়ার জন্য টোটো ভাড়া করতে যায়।

তাদের অভিযোগ সেই সময় টোটো চালকরা তাঁদের কাছে অত্যধিক ভাড়া দাবি করে। এই নিয়েই শুরু হয় বচসা। পর্যটকরা সংখ্যায় বেশী থাকায় টোটো চালকদের সঙ্গে তাঁদের ধ্বস্তাধ্বস্তি শুরু হয়। অভিযোগ সেই সময় পর্যটকদের দলে থাকা এক ব্যক্তি বন্দুক নিয়ে টোটো চালকদের গুলি করে মারার ভয় দেখায়। বেধড়ক পেটানো হয় হোটেলের কর্মী থেকে টোটো চালকদেরও।

খবর পেয়ে দলে দলে টোটো চালক ও স্থানীয় বাসিন্দারা বাঁশ, লাঠি নিয়ে হোটেলে চড়াও হয়। দুই পক্ষই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। টোটো চালকরা এরপর হোটেলেও ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে দিঘা থানার পুলিশ।

কিন্তু সংঘর্ষের পরিস্থিতি হাতের বাইরে যাচ্ছে দেখে দিঘা মোহনা কোস্টাল থানা ও রামনগর থানা থেকেও পুলিশকে ডেকে পাঠানো হয়। অবশেষে দুটি হোটেলেই মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল সুরক্ষা বাহিনী। সেই সঙ্গে কয়েকজন পর্যটককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এলাকা উত্তপ্ত হয়ে থাকলেও পরে পুলিশের চেষ্টায় তা স্বাভাবিক হয়।