স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট : বিজেপি তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুর৷ গেরুয়া শিবিরের পতাকা টাঙাতে বাধা দেয় তৃণমূল বলে অভিযোগ। এমনকী এই ঘটনায় বিজেপির কর্মী সমর্থকদের মারধরও করা হয়৷ গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজিত জনতা দুটি বাইকে আগুনও লাগিয়ে দেয়৷

গঙ্গারামপুর থানার অন্তর্গত নন্দনপুর পঞ্চায়েতের তিলনা এলাকায় রবিবার বিজেপির পক্ষ থেকে রাস্তার দুই পাশে দলীয় পতাকা লাগানো হয়েছিল। সোমবার সকালে স্থানীয়রা লক্ষ্য করেন বিজেপির সবক’টি পতাকা উধাও। অভিযোগ এর পর সোমবার সকালে বিজেপির কর্মীরা ফের পতাকা টাঙ্গাতে গেলে সেই সময় সময় তৃণমূলের লোকেরা এসে তাঁদের বাধা দেন।

আরও পড়ুন : পাকিস্তানের দাবি নস্যাৎ করতে RADAR image প্রকাশ করল বায়ুসেনা

বাধা না মেনে বিজেপি কর্মীরা পতাকা টাঙানোর কাজ চালিয়ে যেতে গেলে তৃণমূলের লোকেরা তাঁদের উপর চড়াও হয়ে মারধর শুরু করেন বলেও অভিযোগ। ঘটনায় বিজেপির কর্মীদের বাঁচাতে ছুটে আসলে গ্রামবাসীদের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় তৃণমূলের বলে অভিযোগ৷ তাঁদের ফেলে যাওয়া দুইটি বাইকে আগুন লাগিয়ে দেন উত্তেজিত বাসিন্দারা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী অমৃত হালদার এদিন অভিযোগ করে বলেন বেশ কয়েকদিন ধরে তৃণমূলর আশ্রিত কিছু দুষ্কৃতী জোড়া ফুলে ভোট দেওয়ার কথা বলে এলাকার মানুষদের নানা ভাবে হুমকি দিচ্ছে। সোমবার সকালে বিজেপির কয়েকজন গ্রামে দলীয় পতাকা টাঙানোর অপরাধে তাঁদের বেধড়ক ভাবে মারতে শুরু করে তৃণমূলের ওই দুষ্কৃতীরা। চোখের সামনে ঘটনাটি দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন গ্রামের সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন: কীর্তনে’র বোলে নেচে গেয়ে প্রচারে তমলুকে’র বিজেপি প্রার্থী

তাঁরা দৌড়ে গেলে তৃণমূলের লোকেরা তাদেরও উপর চড়াও হন ও দুইটি বাইক ফেলেই পালিয়ে যায় তাঁরা। এদিকে তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র জানিয়েছেন যে এরকম কোন ঘটনার সাথেই তাঁদের দলের লোকেরা জড়িত নেই। বিজেপির নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জের বলে তিনি পাল্টা অভিযোগ করেছেন।