স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এক রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল কামারহাটির সাগরদত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো হল ব়্যাফ। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগে জ্বর, সর্দি কাশি, শ্বাসকষ্ট নিয়ে তৃতীয় লিঙ্গের এক ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাঁর রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করতে পাঠানো হয়।

কিন্তু শুক্রবার সকালে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এরপরই তাঁর সঙ্গীরা হাসপাতালে চড়াও হয়। আইসোলেশন ওয়ার্ড, হাসপাতালের চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করেছে বলে অভিযোগ। হাসপাতালের কর্মীরা আটকানোর চেষ্টা করলেও তাতে লাভ হয়নি। পরে ব়্যাফ নামিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। হাসপাতাল ভাঙচুরের ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। ওই মৃতের রিপোর্ট এখনও এসে পৌঁছয়নি।

পুলিশ বাহিনী ঘিরে রেখেছে হাসপাতালের ইমার্জেন্সি এবং আইসোলেশন ওয়ার্ড। এদিকে, মৃতের রিপোর্ট এখনও এসে পৌঁছয়নি। তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কিনা, তা স্পষ্ট নয়। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখা হবে। আপাতত, হাসপাতালের আইসোলেশন ও জরুরি বিভাগ প্রহরায় পুলিশকর্মীরা।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবারই সাগর দত্ত হাসপাতালে দুই স্বাস্থ্য কর্মীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসার পরেই কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত ৩৬ জনকে। এঁদের মধ্যে হাসপাতাল সুপার পলাশ দাস-সহ ১৭ জন চিকিৎসকও রয়েছেন। একই সঙ্গে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী মিলিয়ে ৩৬ জনকে কোয়ারান্টাইনে পাঠিয়ে দেওয়ার ফলে আপাতত বন্ধ রাখা হচ্ছে সাগর দত্ত হাসপাতালের রেডিওলজি ও কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।