স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পুরভোটের জেরে শহরের বিভিন্ন কোণায় সন্ত্রাসের সৃষ্টি হয়েছে৷ পয়লা বৈশাখের দিনেও শহর কলকাতা ফের উত্তপ্ত৷ বুধবার কাশীপুর রোডে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়৷ এলাকার বোমাবাজি ও গুলি চালান হয় বলে অভিযোগ৷ গুলির আঘাতে দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে খবর৷ আহতদের আরজি কর হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার তাদের অস্ত্রপচার করা হবে বলে খবর৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে এই ঘটনায় যথেষ্ট আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে৷ পুলিশ প্রশাসনের তৎপরতা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করছেনে এলাকার মানুষ৷ তাদের আশঙ্কা, আগামী শনিবার ভোট দিতে যাওয়া নিয়েও ঝামেলা বাধতে পারে এলাকায়৷

অন্যদিকে, দুষ্কৃতী হামলার অভিযোগে অবস্থান বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল৷ ডিসি নর্থকে ঘেরাও করেও বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল সমর্থকেরা৷ এই ঘটনায় অভিযুক্তের গ্রেফতারের দাবি তোলা হয় তৃণমূলের পক্ষ থেকে৷ ডিসি নর্থকে এ বিষয়ে ডেপুটেশন জমা দেওয়া হয় তৃণমূলের পক্ষ থেকে৷ প্রায় দেড় ঘন্টা অবস্থান বিক্ষোভ চলার পর পুলিশি হস্তক্ষেপে আপাতত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।