ফাইল ছবি

প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর : প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটে গিয়েছে প্রায় তিনদিন হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এখনও পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়। নেই বিদ্যুৎ পানীয় জল। জেলার সর্বত্র একই ছবি। আর তা না পেয়ে ক্রমশ ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। সে রকমই এদিন বিদ্যুৎ ও পানীয় জলের দাবিতে পথ আবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল উত্তর ২৪ পরগনার রহরা থানার অন্তর্গত বন্দিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দোপেরিয়া এলাকার বাসিন্দারা।

বারাকপুর কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ের দোপেরিয়া মোড় সকাল থেকে আটকে দেয় গ্রামবাসীরা। তিন ঘণ্টা ধরে চলে তুমুল বিক্ষোভ। যার জেরে আটকে পড়ে বহু গাড়ি। গ্রামবাসীদের বক্তব্য, ঝড়ের আগে থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে দোপেরিয়া এলাকায়। সেই বিদ্যুৎ সংযোগ শনিবার দুপুরে ও দেওয়া হয় নি, তাই বাধ্য হয়ে গ্রামবাসীরা অবরোধ করেছে। এদিকে আমফান ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে গোটা উত্তর ২৪ পরগনা জেলা।

ঝড়ে একাধিক ল্যাম্প পোস্ট উপরে পড়েছে বিভিন্ন এলাকায়। গাছ পড়ে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে বিভিন্ন জায়গায় । বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীদের বলে বলেও কোন কাজ করানো যায়নি বলে অভিযোগ স্থানীয় মানুষজনের। আর তাই বাধ্য হয়ে আমরা পথ আবরোধ করেছি বলে দাবি আন্দোলনকারীদের।

এদিকে আবরোধ তুলতে ঘটনাস্থলে রহরা থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী আসে ঘটনাস্থলে। অবরোধ তুলে নেওয়ার আবেদন জানানো হয় পুলিশের তরফে। কিন্তু প্রায় কয়েক ঘন্টা কেটে গেলেও অবরোধ না উঠলে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। পুলিশের সঙ্গে এলাকার বাসিন্দাদের প্রথমে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, যে কোন মূল্যে শনিবারই এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করতে হবে।

এদিকে আবরোধ তুলতে শেষ পর্যন্ত রহরা থানার পুলিশ অবরোধকারীদের উপর লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। সকাল থেকে প্রায় ৩ ঘণ্টা অবরোধ চলার পর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে । দুপুর ১ টা নাগাদ পুলিশ লাঠিচার্জ করে আবরোধ কারীদের হঠিয়ে দেয় । প্রশাসন সূত্রের খবর, এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। বিভিন্ন জায়গায় যাতে দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করা সম্ভব হয়, সেই চেষ্টাই করছে প্রশাসন।