চোপড়া: ভোট মিটলেও শেষ হল না সন্ত্রাস। শুক্রবার সকালে চোপড়ায় চলল গুলি। গুলিবিদ্ধ সপ্তম শ্রেনির ছাত্র।

এদিন সকালে নতুন করে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ শুরু হয় বলে সূত্রের খবর। আর তারই মাঝে পড়ে গুলিবিদ্ধ হয় ওই ছাত্র। ছাত্রের নাম মহম্মদ আবদুল। তাঁকে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিন সকালে নতুন করে উত্তেজনা ছড়ায় চোপড়ার মকদুমি এলাকায়। অভিযোগ, বিজেপি কর্মী সমর্থকরা এলাকায় এসে হামলা চালায়। পাল্টা প্রতিরোধ করে তৃণমূলও। এরপরই তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ শুরু হয়। চলে এলোপাথাড়ি গুলি, বোমাবাজি।

নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় সকাল থেকেই রাজ্যবাসী চোপড়ার হাতিষিষা এলাকায় অশান্তির ছবি দেখেছে। পুলিশের ব্যাপক লাঠিচার্জ। পালটা হামলা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়।

বৃহস্পতোবার ভোট চলাকালীন স্থানীয়দের অভিযোগ, ভোট কেন্দ্রের দিকে গেলেই তৃণমূলের কিছু সমর্থক আমাদের ভয় দেখিয়ে সেখান থেকেচলে যেতে বলছে৷ বলছে আমাদের ভোট নাকি হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু পুলিশ প্রশাসন আশ্বাস দেওয়া সত্ত্বেও কেন ভোট দিতে অস্বীকার করছেন এই প্রশ্নে তাদের জবাব, ওরা কোনও কাজ করে না৷ এখন বলছে ভোটদিতে নিয়ে যাবে, কিন্তু পরে তৃণমূলের লোক আমাদেরকে মারলে ওরা আসবে না৷ তাই আমাদের কেন্দ্রীয় বাহিনী চাই৷