লন্ডন: মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাবের (এমসিসি) ২৩৩ বছরের ইতিহাস প্রথমবার৷ প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট পেতে চলেছে ঐতিহাসিক এই ক্রিকেট ক্লাব৷ ইংল্যান্ডের প্রাক্তন মহিলা অধিনায়ক ক্লেয়ার কর্নর হবেন এমসিসি-র প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট৷ ঐতিহাসিক এজিএমে এমনটাই ঘোষণা করা হয়েছে৷

এমসিসি-র প্রথম অনলাইন এজিএম চলাকালীন বর্তমান প্রেসিডেন্ট কুমার সঙ্গাকারা দ্বারা মনোনীত হয়েছেন ক্লেয়ার৷ ক্লাবের সদস্যদের অনুমোদনের জন্য ২০২১ সালের অক্টোবরে এই ভূমিকা গ্রহণ করা হবে৷

শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন অধিনায়ক সঙ্গাকারা ছিলেন প্রথম নন-ব্রিটিশ এমসিসি প্রেসিডেন্ট৷ সম্ভবত ক্রিভিড-ল্যান্ডস্কেপের উপর COVID-19 মহামারীর প্রভাবের কারণে দ্বিতীয় ১২ মাসের স্পেলের জন্য এই ভূমিকায় থাকবেন।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের মহিলা ক্রিকেটের ম্যানেজিং ডিরেক্টর কর্নর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, ‘এমসিসি-র পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে আমি ভীষণভাবে সম্মানিত। ক্রিকেট ইতিমধ্যে আমার জীবনকে গভীরভাবে সমৃদ্ধ করেছে৷ এটি আমাকে আরও এক দুর্দান্ত সুযোগ দিল৷’

আমরা কতদূর এসেছি তা দেখতে আমাদের প্রায়শই ফিরে তাকাতে হবে। লং রুমে নারীদের স্বাগত জানানো হয়নি৷ এমন সময়ে আমি তারকাবিহীন, ক্রিকেটবিহীন নয় বছরের বালিকা হিসাবে লর্ডসে আমার প্রথম দেখা হয়েছিল। সময় বদলেছে।’

এমসিসি লর্ডসের উপর ভিত্তি করে তৈরি৷ যার মালিকানা ক্রিকেটের ঐতিহ্যেবাহী ক্লাব৷ খেলাধুলার আইনগুলির রক্ষণশীল এবং সালিশী হিসাবে কাজ করে। স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয় এবং ক্লাবগুলির জন্য প্রতি বছর প্রায় ৪৮০ টি গেম খেলার পাশাপাশি এটি যুব ক্রিকেটের জন্য বছরে ২ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করে৷ বর্তমানে এমসিসি-তে ১৮,০০০ পূর্ণ সদস্য রয়েছে৷

অল-রাউন্ডার কর্নর ১৯৯৫ সালে ইংল্যান্ডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন মাত্র ১৯ বছর বয়সে৷ ২০০০ সালে ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হন। ২০০৫ সালে তিনি ইংল্যান্ডকে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ৪২ বছরের ইতিহাসে প্রথম অ্যাশেজ সিরিজ জেতান ক্লেয়ার৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।