শীতের এ মরশুমে শহরে হাজারো উৎসব৷ তবে সব উৎসবই আন্তর্জাতিকতার আস্বাদ পায় না৷ যা দিয়ে গেল ‘ইন্ডিয়া ইন্টারন্যাশনাল গিটার ফেস্টিভ্যাল’৷ শুধু গিটার বাদন নিয়ে এ ধরনের আন্তর্জাতিক আসর আয়োজনের ভাবনা পণ্ডিত দেবাশিস ভট্টাচার্যের৷ দ্বিতীয় বছরে পা দিল এই প্রচেষ্টা৷ এবারের অনুষ্ঠানের উদ্বোধনে ছিলেন পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী, পণ্ডিত স্বপন চৌধুরী, রাতুল শংকর প্রমুখ৷

Pt-Swapan-Chaudhuri,Pt-Ajoy

 

গিটারের মূর্ছনায় শহরকে আন্তর্জাতিক করে তোলাই যেন এ অনুষ্ঠানেপ স্বপ্ন৷ বিদেশের শিল্পীদের উপস্থাপনার পাশাপাসি, তাঁদের সামনে আমাদের দেশের তথা শহরের শিল্পীদের দক্ষতা তুলে ধরা আসলে এক ধরনে সাংস্কৃতিক আদানপ্রদান৷ গতবারের মতো এবারের উৎসবও তার সাক্ষী থাকল৷ এবারের ফোকাস ছিল স্লাইড গিটার৷ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় যে বাদ্যযন্ত্রটির আমদানি হয় এদেশে৷ পণ্ডিত দেবাশিস ভট্টাচার্য নিজে বহু বছর ধরে এই গিটারেই রাগসংগীতের শিক্ষা দিয়ে চলেছেন তাঁর ছাত্রছাত্রীদের৷

Pt-Debashish-Bhattacharya

গিটারের নানা রঙে ভরে উঠল গোটা উৎসব৷ যেমন ছিল ইজরায়েলি বাস গিটারিস্ট গ্যাল ম্যস্ট্রোর বাজনা, তেমনই নিজের উপস্থাপনায় উজ্জ্বল ছিলেন এ শহরের শিল্পী অমিত দে৷ কলকাতা, ত্রিবান্দাম, আর ফ্রান্সের মিলে যেতে অসুবিধা হয়নি সুরের দুনিয়ায়৷

Gal-Maestro

 পুরো অনুষ্ঠান সম্পর্কে পণ্ডিত দেবাশিস ভট্টাচার্যের মন্তব্য, ‘‘ এ অনুষ্ঠান একরকমের দরজা খুলে দেওয়া৷ ৪০ বছর ধরে আমি স্লাইড গিটারে রাগশিক্ষা দিয়ে চলেছি৷ এ উৎসবে যেমন বিদেশের শিল্পীরা এঁদের শুনতে পাবেন, তেমনই এঁরাও শুনতে পাবেন বিদেশী নানা ফর্মের বাদনরীতি৷ এ উৎসব জানিয়ে দেবে, এ দেশে কত প্রতিভা আছে৷’’

ছবি-মিতুল দাস
ছবি-মিতুল দাস