রোম: শিশু মাথায় বল লাগার জেরে পার্কে বন্ধ হয়ে ক্রিকেট খেলা৷ নদার্ন ইতালির বলজানো শহরের এক পার্কে ক্রিকেট খেলার সময় বলের আঘাতে অচৈতন্য হয়ে পড়েছিল দু’বছরের এক শিশুর৷

এই ঘটনার জেরে পার্কে ক্রিকেট খেলা বন্ধ করল বলজানো শহরের মেয়র৷ এই ঘটনার পর শিশুটির বাবা-মা শহরের মেয়র রেনজো ক্যারামাসিকে চিঠি দিয়ে পার্কে ক্রিকেট খেলা বন্ধ করার অনুরোধ জানান৷ তার পরই দ্রুত পার্কে ক্রিকেট খেলা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন মেয়র৷

উত্তর ইতালির এই শহরের বসবাস করেন বেশ কিছু আফগান ও পাকিস্তানি কমিউনিট৷ যারা ক্রিকেট খেলতে ভালোবাসেন৷ কিন্তু পার্কে ক্রিকেট খেলার জন্য শিশুটি মাথায় বল লাগার ঘটনায় স্তম্ভিত তারাও৷ যেখানে খেলা হচ্ছিল সেখান থেকে মাত্র ১০০ মিটার দূরে নিজের বাড়ির ব্যালকনিতে খেলা করছিল শিশুটি৷ সে সময় বলটি তার মাথায় লাগলে সঙ্গে সঙ্গে অচৈতন্য হয়ে পড়ে শিশুটি৷ পড়ে তার জ্ঞান ফেরে৷

উত্তর ইতালির অন্য একটি শহর ব্রেসিয়া আগেই পাবলিক পেসে ক্রিকেট খেলা বন্ধ করে৷ ২০০৯ থেকেই এখানে ক্রিকেট ব্যান করে শহরের মেয়র৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।