ঢাকা: ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পরেই আচমকা বিশেষ কূটনৈতিক সফরে দিল্লির পথে বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

বৃহস্পতিবারই তিনি নয়াদিল্লি যাচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে। একইভাবে ভারতের বিদেশমন্ত্রক বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রীর সফর সূচি নিশ্চিত করেছে।

কূটনৈতিক মহলের ধারণা, ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে যেভাবে বারে বারে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী ও সংখ্যালঘুদের কথা উঠে আসছে তাতে দুই বিদেশমন্ত্রীর বৈঠকে এগুলিই হবে মুখ্য আলোচ্য বিষয়।

নয়াদিল্লি জানাচ্ছে, শুক্রবার ড. এ কে আবদুল মোমেন দিল্লি ডায়ালগ (একাদশ চ্যাপ্টার) ও ইন্ডিয়ান ওশান ডায়ালগের (চতুর্থ চ্যাপ্টার) যৌথ অধিবেশনে অংশ নেবেন। শনিবার সকালে দুই দেশের বিদেশমন্ত্রীর বিশেষ বৈঠক হবে দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতীয় সংসদের দুটি কক্ষ লোকসভা ও রাজ্যসভায় পাস হয়েছে। এতে বলা হয়েছে প্রতিবেশী বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে আসা নির্যাতিত সংখ্যালঘু শরণার্থীদের নাগরিকতা দেওয়া হবে।

বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বাংলাদেশে কোনও সংখ্যালঘু নির্যাতিত নন। ভারতের এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সেই দেশের সহনশীলতাকেই দুর্বল করবে।

বুধবার বিতর্কিত এই বিল পাস হওয়ার পরেই বৃহস্পতিবার ঝটিকা সফরে নয়াদিল্লি যাচ্ছেন বিদেশমন্ত্রী। সূত্রের খবর, দিল্লিতে বিশেষ বৈঠকে ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরের সঙ্গে বৈঠক করবেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী।

ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস করিয়েছে ক্ষমতায় থাকা বিজেপি তথা এনডিএ সরকার। এর জেরে উত্তর পূর্ব ভারতে জ্বলন্ত পরিস্থিতি। অসম ও ত্রিপুরা সেনা টহল চলছে। বনধ-অবরোধ-ইন্টারনেট স্তব্ধ করায় বিতর্ক চরমে।

এদিকে ঢাকায়, মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকের পর ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, আমাদের দেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন, ধর্মীয় নির্যাতন হয় না। আমাদের দেশে ধর্ম যার যার কিন্তু উৎসব সবার। আমাদের দেশে অন্য ধর্মের কেউ নির্যাতিত হয় না।

তাঁর প্রতিক্রিয়ার পরেই ভারতের বিদেশমন্ত্রক জরুরি বৈঠকের জন্য আহ্বান জানায়। সেই বার্তায় বলা হয়। বৃহস্পতিবার বিকালে বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী দিল্লি যাচ্ছেন।