নয়াদিল্লি: এতদিন পর্যন্ত যেভাবে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে এসেছেন, তা এবার বদলে যাবে। সরকার নিরাপত্তার স্বার্থে নয়া পলিসি এনেছে। আর তাতেই এই বদল। আপনি আর আগের মত কোনও চ্যাট মুছে ফেলতে পারবেন না। অন্তত ৯০ দিন পর্যন্ত আপনাকে সব চ্যাটের কথোপকথন রেখে দিতে হবে। যাতে পুলিশ কোনও কারণে চাইলেই আপনি তা দেখাতে পারেন। একরমই বেশ কয়েকটি শর্ত আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক।

একনজরে দেখে নিন সেইসব শর্ত:

১. আপনি যখন কাউকে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ করবেন তখন তা আপনা থেকেই এক জায়গায় জট পাকিয়ে যাবে। যাকে পাঠাচ্ছেন তিনি সাজানো টেক্সটই পাবেন।

২. যদি অ্যাপলের আই মেসেজ ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে টেক্সটের দুইই প্রান্তের থাকা ‘কি’ -তে চাপ দিলেই জড় হয়ে যাবে পুরো মেসেজটা।

৩. সরকার এই সংক্রান্ত নতুন পলিসি নিয়ে কাজ করছে। সরকারি ওয়েবসাইটে সেই সংক্রান্ত তথ্য দেওয়া হয়েছে।

৪. ভারতের বাইরে থাকা কোনও সার্ভিস প্রোভাইডার যদি এই নয়া এনক্রিপশন পলিসি নিতে চায় তাহলে অতি অবশ্যই তাদের ভারত সরকারের সঙ্গে চুক্তি থাকতে হবে।

৫. প্রত্যেকে যদি এই এনক্রিপশনের রেজিস্ট্রার না করে থাকে তাহলে তাদের মেসেজকে বেআইনি বলে ধরা হবে।

৬. ব্যক্তিগত কিংবা অফিসিয়াল সব হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটই সেভ জরে রাখতে হবে অন্তত ৯০ দিন।

৭. ৯০ দিন চ্যাট সেভ করে রাখার নিয়ম প্রত্যেক নাগরিকের জন্য। কেউ ডিলিট করলেই তা বেআইনি হিসেবে ধরা হবে। তার জন্য পুলিশের জেরার মুখোমুখিও হতে হবে।

৮. ব্যবসায়িক কাজে ব্যবহৃত হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রে এনক্রিপশন কি সরকারের কাছে প্রকাশ করতে হয়ে।