নয়াদিল্লি: কিছুটা অদ্ভুত হলেও এটাই শোনা যাচ্ছে। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় দেশের প্রথম কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে তাঁরা। প্রশাসনিক কাজকে আরও সহজভাবে চালানোর জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। ২০১৭ সালে বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটি থেকে এই একই আবেদন জানানো হয়েছিল।

কেন্দ্রের তরফে মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক কেন্দ্রীয় বাহিনীর ডিরেক্টর জেনারেল রাজেশ রঞ্জনকে চিঠি লিখে স্থায়ীভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার কথা জানিয়েছেন।

জানা গিয়েছে, সেই চিঠিতে আরও লেখা আছে যে, কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন রাখার জন্য যে টাকা প্রয়োজন হবে তা বিশ্ববিদ্যালয়কে পাঠানো কেন্দ্রের টাকা থেকে দেওয়া হবে। এই ঘটনার পর বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে চিঠি লিখেছেন।

মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে বিশ্ববিদ্যালয়ে অতিরিক্ত নিরাপত্তা চেয়ে তিনি চিঠি লিখেছেন। অক্টোবর মাসে উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী জানিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত নিরাপত্তারক্ষীদের ‘তৃণমূলের অনুগত’ হিসেবে তকমা দিয়েছিলেন। তিনি প্রতিবাদে সরব ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষীদের খারাপ ব্যবহারের কথাও বলেছিলেন। এই চিঠির একটি কপি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর অফিসেও পাঠানো হয়েছে।

বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী দাবি করেছিলেন, নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে একাধিকবার নিয়ম না মানার অভিযোগ এনেছেন। এছাড়াও, তিনি বারবার বলেছিলেন, তৃণমূলের তরফ থেকে তাঁদের নিশ্চিত আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে। তাঁরা শাস্তি ভয় পান না। তাঁদের বাঁচাতে তৃণমূলের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে নাক গলানোর অভিযোগ এনেছিলেন তিনি।