সুজাপুর: বুধবার বাম-কংগ্রেসের ডাকা সাধারণ ধর্মঘটে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে মালদহের সুজাপুরে৷ বুধবার দিনভর সংঘর্ষে উত্তাল হয় সুজাপুর৷ একের পর এক গাড়িতে ভাঙচুর করে আগুন ধারিয়ে দেওয়া হয়৷ পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ চলে ধর্মঘটীদের৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ করে পুলিশ৷ ফাটানো হয় কাঁদানো গ্যাসের শেল৷ পরে এলাকায় নামানো হয় RAF৷ এদিকে এরই মধ্যে প্রকাশ্যে আসে একটি ভিডিও৷ পুলিশের পোশাকে লাঠি হাতে গাড়ি ভাঙচুর করতে দেখা যায় কয়েকজনকে৷ মুহূর্তে শোরগোল পড়ে যায় রাজ্যজুড়ে৷ পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাম-কংগ্রেস নেতৃত্ব৷ এদিকে, বুধবারের গোটা ঘটনার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে সিআইডিকে৷ বুধবার রাতভর সুজাপুর-সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় তল্লাশি চালায় পুলিশ৷ আটক করা হয় ১২ জনকে৷

বাম ও কংগ্রেসের ডাকা ধর্মঘটে বুধবার রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় মালদহের সুজাপুর৷ প্রথমে ধর্মঘটীরা রাস্তা অবরোধ শুরু করেছিলেন৷ রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে চলছিল অবরোধ৷ এরপর অবরোধ তুলতে যায় কালিয়াচক থানার পুলিশ৷ ধর্মঘটীদের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায় পুলিশের৷ পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হয় বলে অভিযোগ৷ পালটা ব্যাপক লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ৷ উত্তেজিত ধর্মঘটীদের ছত্রভঙ্গ করতে ধাওয়া করে তেড়ে যায় পুলিশ৷ ফাটানো হয় কাঁদানো গ্যাসের শেল৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় নামানো হয় RAF৷

বুধবার বাম-কংগ্রেসের ধর্মঘটের সকালে কালিয়াচকের সুজাপুরে পথ অবরোধ শুরু করেন ধর্মঘটীরা। অবরোধ তুলতে গেলে কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ। অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের তুমুল ধস্তাধস্তি হয়। পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে বনধ সমর্থকদের বিরুদ্ধে৷ পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছোড়া হয় বলেও অভিযোগ ওঠে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ রবার বুলেট চালায় বলেও অভিযোগ ধর্মঘটীদের।

এদিকে, সুজাপুরে পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের ভিডিও ভাইরাল হতেই সমালোচনার ঝড় ওঠে৷ শাসক দলের বিরুদ্ধএ চক্রান্তের অভিযোগ তুলে সরব হয় কংগ্রেস নেতৃত্ব৷
বামেরাও উপযুক্ত তদন্তের দাবি তোলে৷ অন্যদিকে, তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, পুলিশ সত্যিই ওই কাজ করলে তা নিন্দনীয় ঘটনা৷ মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়াও জানান, পুলিশের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ প্রমাণ হলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

এদিকে, বুধবার সুজাপুরের ঘটনার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে সিআইডিকে৷ একইসঙ্গে বুধবারের গন্ডগোলের পর থএকে সুজাপুরে শুরু হয় ব্যাপক পুলিশি ধরপাকড়৷ রাতভর সুজাপুর-সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় চলে পুলিশি তল্লাশি৷ এখনও পর্যন্ত ১২ জনকে আটক করেছে পুলিশ৷