বার্বাডোজ: আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন এটাই শেষ ম্যাচ৷ শেষ ম্যাচে এভাবে জ্বলে উঠবেন, তা আন্দাজ করা যায়নি৷ জামাইকার হয়ে কেরিয়ারের শেষ লিস্ট-এ ম্যাচে ক্যাপ্টেন হিসাবে মাঠে নামেন ক্রিস গেইল৷ ব্যাট হাতে দুরন্ত শতরান করে দলকে জেতালেন ‘ইউনিভার্সাল বস’৷ বল হাতে নিলেন একটি উইকেট৷ মূলত গেইলের দাপটেই বার্বাডোজকে রিজিওনাল সুপার-৫০’এর গ্রুপ ম্যাচে ৩৩ রানে পরাজিত করল জামাইকা৷

আরও পড়ুন: ‘আন্ডারডগ’ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে অট্টহাস্য বিরাটদের

ঘরোয়া ওয়ান ডে ক্রিকেটকে বিদায় জানালেও চারদিনের ম্যাচে মাঠে নামার ইচ্ছে রয়েছে গেইলের৷ জামাইকার হয়ে সুযোগমতো কোনও একটি ফার্স্ট ক্লাস ম্যাচে মাঠে নামতে চান গেইল৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে ফেরারও ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তিনি৷ বিশ্বব্যাপী ঘরোয়া টি-২০ লিগ খেলে বেড়ানো গেইল ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-২০ দলে ফিরেছেন বেশ কিছুদিন হল৷ আপাতত ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে আগামী বছর ওয়ান ডে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়াই তাঁর পাখির চোখ৷

আরও পড়ুন: আরসিবি’র বিরুদ্ধে বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ গেইলের

ঘরোয়া টি-২০’র পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন৷ তবে পরিবারকে সময় দিতে আর ডোমেস্টিক লিস্ট-এ ক্রিকেট খেলবেন না৷ এখবর জানিয়ে দেওয়ার পরেই জামাইকার তরফে শেষ ম্যাচে ক্যাপ্টেন্সি করতে দেওয়া হয় গেলইকে৷ কেরিয়ারের শেষ ডোমেস্টিক লিস্ট-এ ম্যাচে ম্যাচ উইনিং সেঞ্চুরি করে বিদায়বেলা স্মরণীয় করে রাখেন তিনি৷ ১০টি চার ও ৮টি ছক্কার সাহায্যে ১১৪ বলে ১২২ রান করেন গেইল৷ প্রথমে ব্যাট করে জামাইকা ২২৬ রান তোলে৷ জবাবে বার্বাডোজ অলআউট হয়ে যায় ১৯৩ রানে৷ আরও পড়ুন: ছক্কার রেকর্ডে আফ্রিদিকে ছুঁলেন গেইল

ম্যাচের পর গেইল বলেন, ‘জামাইকার হয়ে শেষ ৫০ ওভারের ম্যাচে সেঞ্চুরি করে দারুণ লাগছে৷ ক্যাপ্টেন হিসাবে শেষ ম্যাচে দলকে জেতানো অত্যন্ত আনন্দের৷ আমার মধ্যে এখনও যথেষ্ট রসদ রয়েছে৷ তবে ক্রিকেটের বাইরেও একটা জীবন রয়েছে৷ আমার একটা পরিবার রয়েছে৷ যাদের সময় দেওয়া আমার কর্তব্য৷ ২৫ বছর ধরে ক্রিকেট খেলতে পারা সাধারণ বিষয় নয়৷ সময় পেলে সাবাইনা পার্কে একটা চারদিনের ম্যাচ অবশ্যই খেলব৷ আগামী বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে বিশ্বকাপও খেলতে চাই৷’