নটিংহ্যাম: ব্যাট হাতে বাইশ গজে ক্রিস গেইল মানেই বিপক্ষের ঘুম উড়ে যাওয়ার জোগাড়। স্টেডিয়ামে চার-ছয়ের ফুলঝুরি। শুক্রবার ইংল্যান্ডের মাটিতে সম্ভবত কেরিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করলেন ‘দ্য ইউনিভার্স বস’। দলের মসৃণ জয়ের পাশাপাশি ক্রিস্টোফার হেনরি গেইল তাঁর অন্তিম বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করলেন পরিচিত ঢঙেই।

অর্ধশতরান তো করলেনই, পাশাপাশি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ছয় হাঁকানোর নিরীখে এবি ডি’ভিলিয়ার্সকে সরিয়ে মসনদ দখল করলেন এই জামাইকান. প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মাত্র ১০৬ রান তাড়া করতে নেমে ট্রেন্টব্রিজে এদিন গেইলের ব্যাট থেকে আসে ৩৪ বলে ৫০ রান। ক্যারিবিয়ান ওপেনারের অর্ধশতরানের ইনিংস এদিন সাজানো ৩টি ছয় দিয়ে। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে শুক্রবার হাসান আলিকে টানা দু’টি ছক্কা হাঁকান গেইল। এরপর দশম ওভারে ওয়াহাব রিয়াজকে তৃতীয় ছয়টি মারেন ‘দ্য বস’।

আরও পড়ুন: অজিদের বিশ্বকাপ অভিযান ম্যাচে ওয়ার্নারকে নিয়ে ধোঁয়াশা

তবে হাসান আলিকে প্রথম ছয়টি হাঁকানোর সঙ্গে সঙ্গেই এককভাবে রেকর্ডের নোটবুকে আরও একটি বিশ্বকাপ রেকর্ড জুড়ে নেন তিনি। দ্বাদশ বিশ্বকাপ শুরুর আগে প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান এবি ডি’ভিলিয়ার্সের সঙ্গে যুগ্মভাবে এই রেকর্ডের অধিকারী ছিলেন গেইল। শুক্রবারের ম্যাচে নামার আগে বিশ্বকাপে গেইল-ডি’ভিলিয়ার্সের ঝুলিতে ছিল ৩৭টি ছক্কা হাঁকানোর নজির। দ্বিতীয়স্থানে থাকা ডি’ভিলিয়ার্স যদিও এক্ষেত্রে ৪টি ইনিংস কম খেলেছেন গেইলের তুলনায়।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে ইতিহাস ইমরান তাহিরের

এদিন ৩টি ছয় মেরে নজির ভেঙে ও নতুন নজির গড়ে সেটাকে চল্লিশের কোটায় নিয়ে গেলেন বিধ্বংসী এই ওপেনার। ক্যারিবিয়ান ওপেনারকে ছোঁয়ার নিরীখে চলতি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ব্যাটসম্যানদের আর কেউই তালিকার প্রথম দশে নেই। ৩১টি ছক্কা হাঁকিয়ে তালিকার তৃতীয়স্থানে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন বিশ্বজয়ী অধিনায়ক রিকি পন্টিং, ২৯ এবং ২৮টি ছয় হাঁকিয়ে চতুর্থ ও পঞ্চমস্থানে রয়েছেন যথাক্রমে ব্র্যান্ডন ম্যাককালাম এবং হার্সেল গিবস।

বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ছক্কা হাঁকানোর নজিরের পাশাপাশি ওয়ান-ডে ক্রিকেটে টানা ছ’টি ইনিংসে ৫০ বা তার বেশি রান করলেন গেইল। ন’টি ইনিংসে ৫০ বা তার বেশি স্কোর করে বিশ্বরেকর্ড রয়েছে প্রাক্তন পাক ব্যাটসম্যান জাভেদ মিয়াদাঁদের নামে। সুতরাং ওয়ান-ডে ক্রিকেটে আরও একটি নজির বিশ্বকাপের মঞ্চে ভাঙতেই পারেন দ্য ইউনিভার্স বস।