আবুধাবি: তিনি কামব্যাক করতেই ‘শ্রী’ ফিরেছে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের। তিনি যে কোনও দলের সম্পদ। কেন যে তিনি ‘ইউনিভার্স বস’ তাঁর স্বপক্ষে রয়েছে একাধিক কারণ। যার মধ্যে অন্যতম অবশ্যই তাঁর ছক্কা হাঁকানোর দক্ষতা। বিশ্বের যে কোনও স্টেডিয়ামে ছয় হাঁকানোটা এককথায় ক্রিস্টোফার হেনরি গেইলের কাছে জলভাত। সেই ক্রিস গেইল প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টি২০ ক্রিকেটে ১,০০০ ছক্কা হাঁকানোর কীর্তি গড়লেন শুক্রবার।

ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের হয়ে ব্যাটিংয়ের সময় এদিন এই নজির গড়লেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং মায়েস্ত্রো। তবে নজির গড়ার দিনে মাত্র এক রানের জন্য শতরান হাতছাড়া করলেন ‘ইউনিভার্স বস’। রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে এদিন ৬৩ বলে ৯৯ রান করে আউট হলেন ক্রিস গেইল। শুরু থেকেই চলতি টুর্নামেন্টে ছন্দে পাওয়া গিয়েছে গেইলকে। যা একাধিক ম্যাচে পঞ্জাবের জয়ের কারণ হয়ে উঠেছে।

সেই ফর্মের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই এদিন আবুধাবির আবু শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে ঝড় শুরু করেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং দৈত্য। এদিন গেইলের ৯৯ রানের ইনিংস সাজানো ছিল ৬টি চার এবং ৮টি বিশাল ছক্কায়। এরমধ্যে এদিন নিজের সপ্তম ছক্কাটি হাঁকানোর সঙ্গে সঙ্গে মাইলস্টোন ছুঁয়ে ফেলেন গেইল। অর্থাৎ, আটটি ছক্কা এদিনের ইনিংসের পর টি২০ ক্রিকেটে গেইল তাঁর ছক্কার ট্যালিকে নিয়ে যান ১০০১-এ। টি২০ ক্রিকেটে সর্বাধিক ছক্কা হাঁকানোর নিরিখে দ্বিতীয়স্থানে রয়েছেন গেইলের দেশোয়ালি কায়রন পোলার্ড,

কিন্তু যোজন দূরে রয়েছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ক্রিকেটার। টি২০ ক্রিকেটে পোলার্ড এযাবৎ ৬৯০টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। তৃতীয়স্থানে থাকা ব্রেন্ডন ম্যাককালামের নামের পাশে সংখ্যাটা আরও কম (৪৮৫)। এদিন আবুধাবিতে গেইলের অনবদ্য ৯৯ রান এবং ক্যাপ্টেন লোকেশ রাহুলের ৪৬ রানের দৌলতে রাজস্থান রয়্যালসের সামনে ১৮৬ রানের টার্গেট রাখে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব।

এই নিয়ে মরশুমে তৃতীয় হাফ-সেঞ্চুরি করলেন গেইল। ২০২০ আইপিএলে দ্বিতীয় লেগ থেকে খেলতে শুরু করেন কিংস ইলেভেনের এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। প্রথম ম্যাচেই হাফ-সেঞ্চুরি করে দলকে কাঙ্খিত জয় এনে দেন ‘ক্যারিবিয়ান দৈত্য’। গেইল খেলার পর থেকে কোনও এখনও ম্যাচ হারেনি কিংস ইলেভেন। টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে প্লে-অফের দৌড়ে নিজের অবস্থান মজবুত করেছে পঞ্জাব।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।