প্রতীতি ঘোষ, বারাসাত : বেজে গিয়েছে ভোটের বাদ্যি। নির্বাচনে নীল বাড়ি দখলের লড়াইয়ে মরিয়া বিজেপি। আর সেই লক্ষ্যেই ঘন ঘন বঙ্গ সফরে আসছেন কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ববৃন্দ। আর এবার রাজ্যে গেরুয়া হাওয়া জোরদার করতে আজ বিগ্রেডে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সকাল থেকেই সাজোসাজো রব বিজেপির অন্দরে। বিশাল এই সমাবেশে এসে কী বলবেন প্রধানমন্ত্রী সেই দিকেই তাকিয়ে গোটা রাজনৈতিক মহল।
তবে এসবের তোয়াক্কা না করে প্রধানমন্ত্রীর এই বিগ্রেড সমাবেশকে তীব্র কটাক্ষ করেন বারাসাতের তৃণমূল প্রার্থী চিরঞ্জিত চক্রবর্তী। তিনি বলেন, “বিজেপি আসলে বহিরাগত। এরা যে মঞ্চ থেকে ভাষণ দেয়, সেই মঞ্চের পিছনে ব্যানারে বাংলায় কি লেখা আছে, সেটা পড়তে পারে না। যারা বাংলায় এসে বাংলা পড়তে পারে না, তাদের বহিরাগত বলব।”
তিনি আরও বলেন, “ওরা বলছে সোনার বাংলা গড়বে । আমার প্রশ্ন হল, ওরা তো দেশ চালাচ্ছে, তবে শুধু বাংলাকে সোনার বানাবে কেন ? বাকি রাজ্য গুলো কেন সোনার হবে না ? এটা একটু বাড়াবাড়ি মনে হচ্ছে । দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বার বার আসছে বাংলায়। আমার মনে হচ্ছে, বিজেপি একটা অশ্বমেধের ঘোড়া ছেড়ে দিয়েছে। সেই ঘোড়াটা বাংলায় এসে আটকে যাচ্ছে। ওরা মনে করছে, বাংলার রাজাকে পরাভূত করতে পারলে ওদের কার্যসিদ্ধি হবে। তাই ওদের গোটা মন্ত্রী মন্ডল বার বার আসছে, এতে লাভ নেই।”
তিনি বলেন,  “যে কোনও সার্ভে রিপোর্টে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক এগিয়ে আছেন । মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানে ৫৫% জনতার সমর্থন পাচ্ছেন, অন্যরা সেখানে ১১ বা ১৩ % এ থেমে গিয়েছে। তাই বাংলায় তৃতীয় বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”
রবিবার উত্তর ২৪ পরগনার বারাসাত পুরসভার সভাগৃহে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে ঘরোয়া বৈঠকে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিক বৈঠক করে একথা বলেন বারাসাতের তৃণমূল প্রার্থী চিরঞ্জিত চক্রবর্তী। অভিনেতা তথা চিরঞ্জিত চক্রবর্তী এই নিয়ে তৃতীয় বারের জন্য তৃণমূল প্রার্থী হলেন বারাসাত কেন্দ্র থেকে। আগেও দুবার তিনি এই কেন্দ্র থেকে জিতে বিধায়ক হয়ে ছিলেন।
তিনি বলেন, “বাংলার উন্নয়নে বারাসাত শহরে হাসপাতাল থেকে রাস্তাঘাটের উন্নয়নে, বা শহরের পরিকাঠামো উন্নয়নে বিভিন্ন সামাজিক প্রকল্পে যা কাজ হয়েছে তা অভূতপূর্ব। উন্নয়ন একটা অবিরাম গতি। আমার এখানে একটা আর্ট গ্যালারি করার ইচ্ছা আছে। যদি আগামীদিনে জিতে আসার পর ফান্ড পাই সেই কাজ শুরু করব। উন্নয়ন অবিরাম গতি, সেই গতি জারি থাকবে।”
বারাসাতের তৃণমূল প্রার্থী চিরঞ্জিত চক্রবর্তী আরও জানিয়েছেন, উন্নয়নের পক্ষে মানুষ রায় দেবে । এবার জিতে তিনি রাজ্য সরকারের সঙ্গে জয়ের হ্যাট্রিক করবেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।