তিরুঅনন্তপুরম : লকডাউনের শুরু থেকেই মাঠে নেমে কাজ করছেন। সেভাবে স্পট লাইটে না এলেও অতিমারীর বিভীষিকাময় দিনগুলিতে অসহায় মানুষদের সেবায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বহুবার। কঠিন এই পরিস্থিতিতে ফের আরও একবার ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেন দক্ষিণী ফিল্ম জগতের সুপারস্টার তথা জনপ্রিয় অভিনেতা চিরঞ্জীবি। এবার সাংবাদিক এবং সিনেমা কর্মীদের জন্য বিনামূল্যে ভ্যাক্সিন সরবরাহের ব্যবস্থা করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই বিষয়ে মঙ্গলবার একটি টুইটে তিনি জানিয়েছেন, এবার তামিলনাড়ুর সমস্ত জার্নালিস্ট এবং হল কর্মীদের সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ভ্যাক্সিন প্রদানের ব্যবস্থা করবেন তিনি। এই বিষয়ে তাঁর সঙ্গে সহযোগীতা করবে ‘করোনার ক্রাইসিস চ্যারিটি’ নামে তৈরি ফান্ড। লকডাউনের সময় অসহায় দুুঃস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়াতে তৈরি করা হয়েছিল এই ফান্ড।

জানা গিয়েছে, সেই সময় তাঁর মতো বহু দক্ষিণী তারকা এগিয়ে এসেছিলেন সাহায্য করতে। যথাসম্ভব ভাবে পাশে থেকেছেন দরিদ্র মানুষগুলির। ফলে গতবছর মার্চ থেকে একভাবে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। দেশে ভ্যাক্সিন বাজারজাত হওয়ার পরও থেমে থাকেননি চিরঞ্জীবি। এখনও একভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁর এই কাজ।

অন্যদিকে ফের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড তৈরি করল দেশ। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৩ লক্ষ হতে চলল। একাধিক উদ্যোগ নিয়েও রাশ টানা যাচ্ছে না সংক্রমণে। রাজ্য়গুলিতে হু হু করে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। সংক্রমণে রাশ টানতে নাইট কার্ফু ও উইকএন্ড লকডাউন সহ একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্যগুলি। কিন্তু তাতেও লাভের কিছুই হচ্ছে না। উলটে বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও।

স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৯৫ হাজার ৪১ জন। মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৩ জনের। এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ৫৬ লক্ষ ১৬ হাজার ১৩০ জন করোনায় আক্রান্ত হলেন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ৮২ হাজার ৫৫৩ জনে। অ্য়াক্টিভ মামলার সংখ্যা ২১ লক্ষ ৫৭ হাজার ৫৩৮। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন ১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৪৫৭ জন। এখনও পর্যন্ত মোট সুস্থতার সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লক্ষ ৭৬ হাজার ৩৯। করোনাকে ঠেকাতে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে টিকাকরণ প্রক্রিয়া। এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে দেশের ১৩ কোটি ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৩১০ জনকে। মঙ্গলবারের রিপোর্টে আক্রান্তের সংখ্যা একটু কমলেও বুধবারের রিপোর্ট তা অনেকটাই বেড়েছে।

এদিকে, মে থেকে ১৮ বছর হলেই করোনা টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। এখন ৪৫ ঊর্ধ্বদের জন্য করোনা টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা সারা দেশে চালু আছে। এখন করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার জেরে দেশের করোনা পরিস্থিতি সঙ্কটে ফেলে দিয়েছে প্রশাসনকে। এর ফলে আবার দেশের অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়ার জায়গায় পৌঁছে যেতে পারে বলে অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন। তাই সেই জায়গা থেকে ১৮ বছর হলেই করোনার টিকা দেওয়ার এই কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কেননা ভারতে তরুণ প্রজন্মের সংখ্যাটা নেহাত কম নয়। আর করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কোনও বয়সকেই ছাড়ছে না। তাই এই সিদ্ধান্তকে গুরুত্বপূর্ণ ও সময়োপযোগী বলে মনে করছেন বিশিষ্টরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.