নয়াদিল্লি: লাইন অর্ অ্যাকাচুয়ার কন্ট্রোলের আশেপাশে ঘাঁটি গেড়েছিল চিনের সেনাবাহিনী। আর তারপরই ওই অঞ্চলেই অ্যাটাক হেলিকপ্টার ওড়াল ভারতীয় সেনাবাহিনী।

রাতের অন্ধকারে দৌলত বেগ ওল্ডোর মাথায় উড়েছে আমেরিকা থেকে আসা সেই বিমান। ভারতীয় সেনাএ কারাকোরাম পাসের আছে থাকা সর্বশেষ পোস্ট হল এই দৌলত বেগ ওল্ডি।

সূত্রের খবর, ডিবিও সেক্টররে কাছে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা কমাতে সম্প্রতি অধিকৃত আকসাই চিনের একতি পোস্টে মিটিং হয় কমান্ডার স্তরে। ডেসপাং ভ্যালিতে প্যাট্রলিং চালানোর দাবি জানিয়েছে ভারতীয় সেনা।

ওই এলাকায় যদি পরিস্থিতি খারাপ হয়, তাহলে ভারতীয় সেনা কীভাবে জবাব দেবে, সেটারই একটা মহড়া দেওয়ার জন্য ওই চিনুক ওড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একদিকে যখন চুশুল এলাকায় পাহারা দিচ্ছে আ্যাপাচে হেলিকপ্টার, অন্যদিকে চিনুক উড়ল ডিবিও সেক্টরে।

আফগানিস্তানের পার্বত্য এলাকায় রাতের অন্ধকারে ওড়ার রেকর্ড আছে চিনুকের। ইতিমধ্যেই ওই অঞ্চলে T-90 ট্যাংক ও কামান মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে, রবিবার সকালেই ভারতের প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে বড়সড় ঘোষণা করেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। এরপর একগুচ্ছ ট্যুইটে সেসব ঘোষণা করেন রাজনাথ সিং।

এবার প্রতিরক্ষাতেও আত্মনির্ভরতার পথে ভারত। প্রত্যেক বছর কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে বিদেশ থেকে আনা হয় একাধিক প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম। এবার ভারতেই সেসব তৈরি করার বার্তা দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। ইতিমধ্যেই ১০১ টি সরঞ্জামের তালিকা তৈরি করা হয়েছে, যা অন্য দেশ থেকে আমদানি করা হবে না বলে জানা গিয়েছে।

রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, ভারতীয় সেনাবাহিনী, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা এবং স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকের পর সেই তালিকা তৈরি করেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

তিনি আরও জানান, ২০১৫ থেকে ২০২০-র মধ্যে তিন বাহিনীতে এরকম অন্তত সাড়ে ৩ লক্ষ কোটি টাকার অস্ত্র ও সরঞ্জাম আমদানি করা হয়েছে। এবার এই সিদ্ধান্তের পর ভারতীয় সংস্থাই ৪ লক্ষ কোটি টাকার বরাত পাবে আগামী ৬-৭ বছরে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।