স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: চিংড়িঘাটা উড়ালপুলের নকশায় ভুল আছে৷ ফলে যে কোনও সময় ঘটে যেতে পারে বড়সড় দুর্ঘটনা৷ বিপদ এড়াতে ওই উড়ালপুল দিয়ে ভারী যান চলাচল বন্ধ হতে পারে৷ শনিবার চিংড়িঘাটা উড়ালপুল পরিদর্শনের পর এমনই ইঙ্গিত দিলেন পুর ও নগরোন্নয়ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম৷

বাম আমলে হিডকো নির্মিত এই সেতুর নকশার অনুমোদন করেন প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম দেব৷ এই সেতু পরিদর্শনের পর মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘‘উড়ালপুলের নকশায় ভুল রয়েছে৷ দুটি পিলার লাগিয়ে সেটি মজবুত করতে হবে৷’’ সেতু না ভেঙে নকশার বদল ঘটিয়ে কাজ শুরুর নির্দেশ দেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী৷

চিংড়িঘাটা উড়ালপুলের বাঁকে নকশায় ত্রুটি ধরা পড়েছে৷ এক্ষেত্রে ভারি যান চলাচল করলে বিপদ ঘটে যেতে পারে৷ তাই আগামীতে সাময়িকভাবে এই উড়ালপুল দিয়ে গাড়ি চলাচল বন্ধ হতে পারে বলে ইঙ্গিত দেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম৷

মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পর কলকাতার বেশ কয়েকটি সেতুকে বিপজ্জনক বলে ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রাজ্যের সব সেতুর কাঠামোর অবস্থা সম্পর্কে রিপোর্ট পেশ করতে নির্দেশ দেন প্রশাসনিক আধিকারীকদের৷ ইতিমধ্যেই ফিরহাদ হাকিম মহানগরের উত্তর থেকে দক্ষিণে বেশ কয়েকটি সেতু ঘুরে দেখেছেন৷ পরিকাঠামোগত ত্রুটি দেখলেই তা মেরামতির নির্দেশ দেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।