ঢাকা: করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। এই আশঙ্কায় বাংলাদেশ সরকার সাময়িকভাবে চিনা নাগরিকদের জন্য দরজা বন্ধ রেখেছে। যারা বাংলাদেশের ভিসার আবেদন করবেন এবার থেকে তাদেরকে ফিটনেস সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক একথা জনিয়েছেন। জাহিদ মালেকের মতে, চিনের উহান থেকে ঢাকায় আসা নাগরিকদের আশকোনা হজ ক্যাম্পে ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। এদের খাবার সরবরাহ করছে বাংলাদেশ সরকার।

বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য আধিকারিক আবুল কালাম আজাদ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মহাপরিচালক কাজী আখম মহিউল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান প্রমুখ। এদিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, খুব দ্রুত জাপান সরকার ৬৮ লাখ মাস্ক বাংলাদেশকে বিনামূল্যে পাঠাবে। যারা সর্দি-কাশি-জ্বরে ভুগছেন তাদের মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, কারণ যাতে তাদের মাধ্যমে রোগ অন্যদের মধ্যে সংক্রমিত না হয়। বাকিদের আপাতত মাস্ক ব্যবহার না-করলেও চলবে।

বাংলাদেশে যাতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে না-পড়ে সেজন্যই সচেতন হয়েছে সরকার। জনগণের কথা মাথায় রেখে নানা ইতিমধ্যেই নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। তাই এবার থেকে চিনা নাগরিকদের বাংলাদেশের ভিসা পেতে ফিটনেস সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য দফতর পূর্ণ সজাগ রয়েছে। তিনি দাবি করেন এই মুহূর্তে বাংলাদেশে একজনও করোনা ভাইরাসের রোগী নেই। আগামী দিনে যাতে করোনা ছড়িয়ে পড়তে না পরে সেজন্য নানা সীমান্তে বসানো হয়েছে স্ক্যানিং মেশিন।