বেজিং: হাফিজ সইদের সুরেই কথা বলল চিনের সংবাদমাধ্যম৷ তাদের দাবি পাকিস্তানকে মার্কিন সাহায্য বন্ধের পিছনে রয়েছে ভারতের হাত৷ বেজিং-এ প্রকাশিত সংবাদপত্র গ্লোবাল টাইমসের বক্তব্য ভারতের বিদেশনীতি ক্ষুদ্র স্বার্থকে সামনে রেখে তৈরি করা হয়েছে৷ এর মাধ্যমে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলির সঙ্গে কোনওভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখা সম্ভব নয়৷

বলাই বাহুল্য, এখানে চিন ও পাকিস্তানের নামোল্লেখ না করেই ইঙ্গিতে বোঝানো হয়েছে এই দুই দেশের কথা৷ পাকিস্তানকে অর্থসাহায্য বন্ধ করে দেওয়ার পিছনে ভারতের হাত রয়েছে বলে পরিস্কার দাবি করা হয়েছে সংবাদপত্রের সম্পাদকীয়তে৷ নয়াদিল্লির কাছে বেজিং-এর আবেদন দেশের বিদেশনীতির অবশ্যই পরিবর্তন দরকার৷ তাতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বরফ গলবে বলে মন্তব্য করেছে চিনের সংবাদপত্রটি৷

সম্প্রতি পাকিস্তানকে সাহায্য করতে অস্বীকার করে আমেরিকা৷ তার দোষ ভারতের ঘাড়ে চাপায় কুখ্যাত জঙ্গী হাফিজ সইদ৷ তার অভিযোগ, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পাক সরকারকে সাহায্য করতে অস্বীকার করেছে কারণ, এর পিছনে ভারতের হাত রয়েছে৷

এরআগে, হোয়াইট হাউজ সম্প্রতি একটি ঘোষণা করে৷ তাদের তরফ থেকে জানানো হয়, পাকিস্তানকে ২৫৫ মিলিয়ন ডলারের যে অর্থ সাহায্য করে মার্কিন প্রশাসন, সেই টাকা আর পাঠাবে না তারা৷ এর পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ট্যুইটারে জানিয়েছেন, এর আগে “বোকার মতো” পাকিস্তানকে ৩৩ বিলিয়ন ডলার দিয়েছে আমেরিকা৷ গত ১৫ বছর ধরে এই টাকা দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু পরিবর্তে আমেরিকা কিছুই পায়নি৷ তাই এবার টাকা দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হবে৷

তাই বেজিং-এর পরামর্শ, পাকিস্তানের বিদেশনীতি চিন ও রাশিয়াকেন্দ্রিক হওয়া উচিত৷ তাতে, আখেরে পাকিস্তানেরই লাভ৷ কারণ ইসলামাবাদকে বাণিজ্যিক সুবিধা দিতে প্রস্তুত বেজিং৷ পাকিস্তান চাইলে এই দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের নতুন দিক রচিত হতে পারে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পাকিস্তানের বর্তমান দ্বিপাক্ষিক পরিস্থিতির ঘোলা জলের ফায়দা নিয়ে চিন কূটনৈতিক চাল খেলতে চাইছে বলে মত আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের৷