বেজিং: এক মহামারীতে আস্থির গোটা দুনিয়া। চিন থেকে মহামারী শুরু হলেও আমেরিকা, ব্রিটেনের মত দেশে মারণ আকার ধারণ করেছে করোনা ভাইরাস। এর থেকে মুক্তির পথ এখনও খুঁজে পাননি কেউ। তার মধ্যেই হাজির নতুন আতঙ্ক। ছড়াতে পারে প্লেগ। লেভেল-৩ ওয়ার্নিং জারি করা হয়েছে।

নর্দার্ন চিনের একটি শহরে দু’জন ইতিমধ্যেই আক্রান্ত হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। রবিবারই তাই বিশেষ সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে চিনে। এরপরই বায়ানুর নামের ওই জায়গায় ওয়ার্নিং জারি করা হয়েছে।

বায়ানুরের একটি হাসপাতালে শনিবার দু’জনকে প্লেগ আক্রান্ত বলে সন্দেহ করা হয়। ২০২০-র শেষ পর্যন্ত এই ওয়ার্নিং জারি থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, বর্তমানে ওই শহরে মহামারীর আকার ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই মানুষকে সতর্ক হতে হবে। অসুস্থ বোধ করলেই হাসপাতালে যেতে হবে।

ল্যাব টেস্ট রেজাল্টে ইতিমধ্যেই ওই দু’জনের প্লেগের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হয়েছে। একজনের বয়স ২৭ বছর ও একজন তাঁরই ভাই, যার বয়স ১৭ বচর। এদের দু’জনকে দুটি আলাদা হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা চালানো হচ্ছে।

জানা গিয়েছে দ্বিতীয় জন ইঁদুরের মাংস খেয়েছিল। আর তার জেরেই এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

ওই দু’জনের সংস্পর্শে এসেছে এমন ১৪৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এছাড়া সাধারণ মানুষকে ইঁদুরের মাংস খেতে নিষেধ করা হয়েছে।

বিউবনিক প্লেগ হল একটি ব্যাকটিরিয়া জনিত রোগ। যা মাছি থেকে ছড়ায় বলে জানা যায়। ঠিক সময়ে চিকিৎসা না হলে, খুব কম সময়ের মধ্যে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে বলে জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

গত বছর কাঁচা ইঁদুরের মাংস খেয়ে এক দম্পতির মৃত্যু হয় এই রোগে। চিনের মনগোলিয়ান প্রভিন্সে এই ঘটনা ঘটে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ