বেজিং : যা আশঙ্কা করেছিলেন। তা সত্যি হল। করোনা আক্রান্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প। শুক্রবার সকালেই তাঁদের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে।

এক ট্যুইট বার্তায় তাঁরা জানিয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন পুরো পরিবার। চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। খুব দ্রুত সুস্থ হবেন বলেও আশা প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প।

এদিকে শনিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে টুইট করেছে চিনের প্রেসিডেন্ট জি জিংপিং। পাশে থাকার বার্তাও দিয়েছেন তিনি।

চিনের স্টেট টিভির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত খবর থেকে জানা গিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্রতি এদিনের টুইট বার্তায় চিনা প্রেসিডেন্ট জি জিংপিং লিখেছেন, ” আমি এবং আমার স্ত্রী পেং লিয়ুয়ান করোনা সংক্রমণ থেকে দ্রুত আপনাদের আরোগ্য কামনা করছি। আশাকরি খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠবেন আপনারা।”

যদিও ২০১৯ সালের শেষদিক থেকে গোটা বিশ্বের সঙ্গে সম্পর্ক খুব একটা ভালো যাচ্ছে না চিনের। ব্যাতিক্রম নয় আমেরিকাও।

করোনা ইস্যু থেকে শুরু করে চিন-মার্কিন সম্পর্ক, ব্যবসা বাণিজ্য, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্র এছাড়াও চিনের উওর- পশ্চিমাঞ্চলের সিংজিয়াং প্রদেশের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় আমেরিকার সঙ্গে গত কয়েক দশকের মধ্যে এই প্রথম সম্পর্ক প্রায় তলানীতে এসে ঠেকেছে।

এমনকি গত মঙ্গলবারও করোনার জন্য ফের চিনকেই দায়ী করেছিলেন ট্রাম্প। যদিও এখন দেখার চিনা প্রেসিডেন্টের টুইট বার্তার কী জবাব দেন ট্রাম্প। অবশ্য উত্তরদাতা যে এখন রয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে।

অন্যদিকে, করোনায় আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এখন হাসপাতালে। সিএনএন জানাচ্ছে তাঁর শ্বাসকষ্টের মাত্রা বেড়েছে। শুক্রবার বিকালে সত্তরোর্ধ্ব ট্রাম্পকে মেরিল্যান্ডের ওলটার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়।

তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া নিজেও করোনা আক্রান্ত। বয়স ও ওজনের কারণে ট্রাম্প করোনার মারাত্মক ঝুঁকিতে আছেন। ৭৪ বছর ট্রাম্পের বডি ম্যাস ইনডেক্স (বিএমআই) ৩০ এর ওপরে, যাকে বলা যায় ওজনাধিক্য বা স্থুলতা। আর মেলানিয়ার বয়স ৫০ বছর। তার শরীরেও মৃদু উপসর্গ দেখা দিয়েছে।

মার্কিন ফার্স্ট লেডির হাল্কা কাশি হচ্ছে। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, প্রেসিডেন্ট ভালো আছেন।তাকে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে না। রেমডিসিভির থেরাপি প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ট্রাম্পকে। তিনি বিশ্রাম নিচ্ছেন। ডাক্তারদের আশা, খুব দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।