বেজিং: সম্প্রতি সামনে এল এক আশ্চর্য তথ্য। জানা গিয়েছে চিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা প্রকাশিত তথ্যর তুনায় ১৪ গুন বেশি। আমেরিকার বেশ কিছু গবেষকের তরফে জানানো হয়েছে এই মহামারীর আসল তথ্য বিশ্বের থেকে চিন লুকিয়ে গিয়েছে। গত ডিসেম্বর থেকে চিনে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছিল। কিন্তু তার পরেও কড়া লোক ডাউনের কারণে নিয়ন্ত্রণে এসেছিল।

গত বছরে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরে একাধিক মানুষ মারা গিয়েছিল চিনে। কিন্তু তারপরেও আমেরিকার গবেষকের তরফে জানান হয়েছে আসল তথ্য বিশ্বের সামনে নিয়ে আসেনি চিন। ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসের কারণে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে মুখ পুড়েছে চিনের। তারপরে এই গবেষণা সামনে আসাতে ফের প্রশ্নের মুখে চিন। এছাড়া এও সামনে এসেছে চিনের ইউহান প্রদেশের ৮৬ টি কবরস্থানে কার্যত ২৪ ঘণ্টা কাজ চলছিল। যা দেখে বোঝা গিয়েছে চিনে মৃত্যুর হার যথেষ্টই বেশি।

বেজিং এর তরফে জানা গিয়েছে প্রায় ৪৬৩৪ জন এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছেন করোনা ভাইরাসে। কিন্তু পরিস্কার হয়েছে চিন নিজের দেশের করোনা ভাইরাস সংখ্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে স্বচ্ছ নয়। অর্থাৎ কতজন আক্রান্ত হয়েছে এবং কতজন মারা গিয়েছে তার সঠিক হিসেব বিশ্বের সামনে পেশ করেনি চিন।

চিনের এই লুকিয়ে যাওয়ার পিছনে মুখ পুড়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থারও। ওই বিশেষজ্ঞদের তরফে জানানো হয়েছে চিনের কবস্থানে হওয়া কাজ এবং তার পর্যালোচনা করে বোঝা গিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে প্রকাশ কড়া তথ্যর সঙ্গে চিনের বাস্তব তথ্যর বিস্তর ফারাক রয়েছে। এই তথ্য সামনে আসাতে ফের চিন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে প্রশ্নের মুখে পড়বে সে বিষয় কোন সন্দেহ নেই।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ