নয়াদিল্লি: গৌরি লঙ্কেশ, শান্তনু ভৌমিক, কে জি সিংয়ের মতো নির্ভীক সাংবাদিকদের পেশার তাগিদে খুন হতে হয়েছে৷ অথচ সংবাদমাধ্যম স্বাধীনতা সূচক বলছে ভারতে সাংবাদিকদের অবস্থা চিনের থেকে অনেক ভালো৷ ১৮০টি দেশের মধ্যে সমীক্ষা চালিয়ে একটি রিপোর্ট তৈরি করেছে রিপোর্টাস উইদাউট বর্ডার (আরএসএফ)৷ সেখানে দেখা গিয়েছে কর্মজগতে সবচেয়ে বাজে পরিস্থিতির শিকার হন চিনের সাংবাদিকরা৷ ১৮০টি দেশের মধ্যে তাদের স্থান ১৭৬ তম৷

রিপোর্টে বলা হয়েছে সবচেয়ে বেশি জেলের ঘানি চিনের সাংবাদিকদেরই কাটতে হয়৷ সাংবাদিকদের জন্য চিন সবচেয়ে বিভীষিকাময় দেশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে৷ সেই তুলনায় ভারতের সাংবাদিকরা কাজের ক্ষেত্রে অনেক বেশি স্বাধীনতা পেয়ে থাকেন৷ সূচকে ভারতের স্থান ১৩৬ তম৷

খবর সংগ্রহ করা সাংবাদিকদের পেশা৷ এই খবর সংগ্রহের কাজে থাকে নানা ঝুঁকি৷ থাকে প্রাণনাশের শঙ্কা৷ পাকিস্তানে খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক সাংবাদিককে হত্যা করা হয়েছে৷ রিপোর্টে ৬০ জন এমন সাংবাদিকদের কথা বলা হয়েছে যারা ১৯৯৪ সালের পর পাকিস্তানে গিয়ে আর ফিরে আসেননি৷ যদিও সূচক অনুযায়ী ভারতের ঠিক তিন ধাপ নীচেই রয়েছে পাকিস্তান৷ চিনের থেকে খারাপ অবস্থা উত্তর কোরিয়া ও যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার৷ এই দুই দেশেরই স্থান যথাক্রমে ১৮০ ও ১৭৭৷ ভিয়েতনাম রয়েছে ১৭৫ তম স্থানে৷

উল্টোদিকে নরওয়ে, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, ডেনমার্ক এবং দ্য নেদারল্যান্ড সূচকের একেবারে প্রথম পাঁচে জায়গা করে নিয়েছে৷ এই সমীক্ষা ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে সাংবাদিকদের উপর হিংসার ঘটনা, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা, কাজের পরিবেশ, সেন্সরশিপ, সাংবাদিকদের জন্য আইনি কবচ, স্বচ্ছতা এবং পরিকাঠামো – ইত্যাদি বিষয়গুলি প্রাধান্য পেয়েছে৷

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প