ঢাকা: চিন ফেরত কোনও বাংলাদেশি মারণ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি এখনও। এমনই জানাচ্ছে সরকার। কিন্তু খোদ চিনা মহিলা শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভরতি হতেই আতঙ্ক ছড়াল। তাঁকে রংপুর মেডিকেল কলেজের করোনা ইউনিটে রেখে চিকিৎসা শুরু হয়েছে।

অসুস্থ চিনা মহিলা গত ৪ ফেব্রুয়ারি সরাসরি তাঁর দেশ থেকে বাংলাদেশে ফিরেছেন। তাঁর নাম জিং জং। ২৯ বছরের জিং বাংলাদেশে কর্মরত। তিনি নীলফামারী তে উত্তরা রফতানি অঞ্চলে কাজ করেন। বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ এই বাণিজ্যিক এলাকায় অনেক বিদেশি নাগরিক কর্মরত।

এদিকে জ্বর নিয়ে চিনা মহিলা জিং জং হাসপাতালে যাওয়ায় ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস আতঙ্ক। এই ভাইরাস ঘটিত রোগে চিন মৃত্যুপুরী। দেড় হাজারের বেশি মানুষ মৃত। ৬৫ হাজারের বেশি সংক্রামিত। গত বছর ডিসেম্বর মাস থেকে ভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়েছে চিনে। জানা গিয়েছে, ভাইরাস ছড়ানোর পর গত ফেব্রুয়ারি মাসেই চিন থেকে বাংলাদেশে ফিরেছেন জিং।

রংপুর মেডিকেল কলেজের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. নারায়ণ চন্দ্র জানান, গত দু দিন ধরে সর্দি-জ্বর ও বুকে ব্যথা অনুভব করেন চিনা মহিলা। অবস্থা আরও খারাপ হয় রবিবার। এরপরই তাকে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভরতি করা হয়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চিনা মহিলাকে কড়া পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বিষয়টি ঢাকায় জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে জানানো হয়েছে। সেখান থেকে এসে বিশেষজ্ঞ দল নমুনা সংগ্রহ করবেন।

আর বাংলাদেশ সরকার রবিবারই জানিয়েছে, করোনা ভাইরাস ছড়ানোর পর চিন ফেরত ৩০০ জনের বেশি বাংলাদেশি সুস্থ।