বেজিং: সীমান্ত সংঘর্ষ ও উত্তেজনা নিয়ে বারেবারে রং পাল্টাচ্ছে চিন। একদিকে যেমন সীমান্তে চিনা সেনা রীতিমতো উস্কানি মূলক পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে ভারতীয় বাহিনীর তরফে দাবি করা হচ্ছে, অন্যদিকে চিনের বিদেশমন্ত্রক সীমান্ত সংঘর্ষ ও উত্তেজনার জন্য ভারতকেই একপ্রকার দায়ী করছে। বুধবার চিনের বিদেশমন্ত্রকের তরফে ভারতকে অনুরোধ করে, ভারত যেন তার নিজের ভুলগুলি সংশোধন করে ও শীঘ্রই সেনা সরিয়ে নেয়।

বুধবার চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন সংবাদমাধ্যমকে জানায়, ভারতের পক্ষে ভুল বিষয়গুলি দ্রুত সংশোধন করা ও সীমান্তে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেনা সরিয়ে নিয়ে চিন-ভারত সীমান্তে উত্তেজনা হ্রাস করা জরুরি।

চিনা পত্রিকা গ্লোবাল টাইমস বিদেশ মন্ত্রকের এক মুখপাত্রের কথা উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, চিন নাকি সীমান্তে উত্তেজনার জন্য মোটেই দায়বদ্ধ না। ভারতই নাকি প্রথম দ্বিপাক্ষিক চুক্তি লঙ্ঘন করে সীমান্ত অতিক্রম করেছিল। যদিও চিনা বাহিনীর এ অভিযোগ অবশ্য নতুন নয়।

উল্লেখ্য, ভারতে নিযুক্ত চিনের রাষ্ট্রদূত সাং ওয়েইডং দিন কয়েক আগেই বলেন দুই দেশের মধ্যে যে জটিল পরিস্থিতি তৈরি হয়ে রয়েছে, তা কেটে যাবে খুব দ্রুত। সুস্পর্কের দিন ফের ফিরে আসবে। দুই দেশ আলোচনার মাধ্যমেই নিজেদের পথ খুঁজে নেবে।

নয়াদিল্লিতে এদিন ওয়েইডং বলেন তিনি বিশ্বাস রাখেন দুদেশের শান্তিকামী প্রকৃতি ও মনোভাবের ওপর। দুই দেশই বারবার আলোচনা চাইছে। বৈঠকের মধ্যে থেকেই শান্তি ও স্থিতাবস্থার সূত্র বেরিয়ে আসবে। সীমান্তে আর উত্তেজনা কাম্য নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তবে মুখে শান্তির কথা বললেও সীমান্তে খালি লোকবল ও অস্ত্রশস্ত্র বাড়াচ্ছে চিন। সামঞ্জস্য বজায় রাখার জন্য একই পথে যাচ্ছে ভারত। কিন্তু এর ফলে ক্রমশই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে সীমান্ত। তবে ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে রাফায়েল জেট আসার পর থেকেই সীমান্তে খেলা ঘুরেছে। প্যাংগংয়ের দক্ষিণ প্রান্তে অনেক গুরুত্বপূর্ণ চুড়োর দখলও এখন ভারতের হাতে। ফলে খেলা অনেকটাই ঘুরেছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।