বেজিং: করোনা ভাইরাস ছড়ানোর ক্ষেত্রে বারবার আঙুল উঠেছে চিনের দিকে। বলা ভালো, উহানের ল্যাবরেটরির দিকে। বিশেষ আমেরিকা এমন অভিযোগ করেছে বারবার। এবার সেই ল্যাবরেটরির ভিতরের কিছু ছবি প্রকাশ করল চিন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প একাধিকবার বলেছেন যে উহানের ল্যাব থেকেই সম্ভবত ভাইরাস লিক হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে। এবার সেই অভিযোগের জবাব দিতেই চিনের সংবাদমাধ্যম সিসিটিভি-তে প্রকাশ করা হয়েছে কিছু ছবি। এই প্রথমবার ল্যাবের ভিতরের ছবি প্রকাশ্যে আনা হল। যদিও এর থেকে ল্যাবের কাজ সম্পর্কে কোনও নতুন তথ্য পাওয়া যায়নি।

কাঁচের দরজার বাইরে থেকে ভিতরের কিছু ছবি তোলা হয়েছে, যা দেখেই মোটেই ভিতররে কর্মকাণ্ড সমওর্কে কিছু জানা যাচ্ছে না। উহানের ন্যাশনাল আয়োসেফটি ল্যাবরেটরির ডিরেক্টর ইউয়ান ঝিমিং বলেন, ‘ভাইরাস লিক হয়ে যাওয়ার মত কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি।

চিনের ভাইরাস কালচার কালেকশনের কেন্দ্র এই গবেষণাগার। বলা যেতে পারে এটাই্ এশিয়ার বৃহত্তম ভাইরাস ব্যাংক। যেখানে ১৫০০ ধরনের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা-নিরিক্ষা চলছে। এবোলার মত ভাইরাস নিয়েও গবেষণা করে এরা। যেসব ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াতে পারে, সেরকম ভাইরাস রয়েছে এই গবেষণাগারে।

৪২ মিলিয়ন ডলারে তৈরি করা হয় এই ল্যাবরেটরি। ২০১৫ সালে ল্যাব তৈরির কাজ শেষ হয়। ২০১৮ থেকে এখানে গবেষণার কাজ শুরু হয়। এখানে অবশ্য একটি ল্যাবরেটরি রয়েছে, যা ২০১২ থেকে কাজ শুরু করেছে।

এই গবেষণাগার অবস্থিত জঙ্গলে ঘেরা একটি পাহাড়ের তলায়। পাশেই রয়েছে জলাশয়। লোকালয় থেকে দূরে এই গবেষণাগার ৩২০০০ স্কোয়্যার ফুট জায়গা জুড়ে রয়েছে। বিল্ডিং-এর বাইরে একটি সতর্কবার্তা লেখা রয়েছে। সেখানে লেখা আছে, “Strong Prevention and Control, Don’t Panic, Listen to Official Announcements, Believe in Science, Don’t Spread Rumours”.

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব