বেজিং: চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই জানিয়েছেন, তার দেশ আমেরিকার সঙ্গে কোনও রকমের কূটনৈতিক লড়াইয়ে যেতে চায় না। বরং বেজিং ওয়াশিংটনের সঙ্গে উত্তেজনা না বাড়িয়ে সম্পর্কের উন্নতি চাইছে।

চিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম শিনহুয়াকে বুধবার দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনই বার্তা দিয়েছেন ওয়াং ই। তিনি আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করতে চার নীতির কথা বলেছেন। সেগুলি হল – সংঘাত এড়ানো, আলোচনার জন্য পথ খুলে রাখা, পরস্পর বিচ্ছিন্ন না হওয়া এবং দায়িত্ব ভাগাভাগি করে নেওয়ার কথা ।

২০১৭ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই প্রচণ্ডভাবে চিন-বিরোধী অবস্থান গ্রহণ করেন। ফলে দু’দেশের সম্পর্ক ঘিরে জটিলতা তৈরি হতে থাকে। বিশেষত ট্রাম্পকে দেখা যায় চিনের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধ শুরু করতে এবং দক্ষিণ চিন সাগর নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করতে। এছাড়া সম্প্রতি তাইওয়ান, হংকং এবং করোনাভাইরাস ইস্যুতে বেইজিংয়ের সঙ্গে ওয়াশিংটনকে রীতিমতো বিবাদে জড়িয়ে পড়তে দেখা গিয়েছে।

আগামী নভেম্বর মাসে আমেরিকায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার কথা। নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে দেখা যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসনকে ততই লক্ষ্যণীয়ভাবে চিনের সঙ্গে উত্তেজনা বাড়িয়ে তুলতে। এ সম্পর্কে ওয়াং ই জানিয়েছেন, এক্ষেত্রে কূটনৈতিক লড়াই হবে ভুল পদক্ষেপ। একুশ শতকে যারাই স্নায়ুযুদ্ধের সূচনা করবে তারাই ইতিহাসের পাতায় ভুল পক্ষ হিসেবে চিহ্নিত হবে এবং তাদেরকে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার অবসানকারী হিসেবে মনে রাখা হবে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও