ওয়াশিংটন: পাকিস্তানের মত বন্ধু দেশগুলিতে নৌঘাঁটির ব্যবস্থা করছে চিন। পেন্টাগনের থেকে প্রকাশিত রিপোর্টে এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে। চিনের সামরিক  ক্ষেত্রে উন্নয়ন সংক্রান্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, নৌঘাঁটি তৈরির জন্য জায়গা খুঁজছে চিন।

রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে, চিন বরাবরই পাকিস্তানের সঙ্গে সামরিক ক্ষেত্রে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক রেখেছে। সে অস্ত্র বিক্রির ক্ষেত্রেই হোক আর প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত ইস্যুতে। এর মধ্যে রয়েছে যৌথ উদ্যোগে তৈরি LY-80 এয়ার মিসাইল সিস্টেম, F-22P ফ্রিজেট, হেলিকপ্টার, ট্যাংক, ক্রুজ মিসাইল।

সম্প্রতি অন্য একটি রিপোর্টে চিনা সৈন্যের আনাগোনা বেড়ে চলায় সতর্ক বার্তা দিয়েছে পেন্টাগন। যদিও চিন সেই দাবি অস্বীকার করেছে।

পেন্টাগনের পাঠানো রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রত্যেকটি সেনা চৌকিতে সম্প্রতি সৈন্যসংখ্যা বাড়ানো শুরু করেছে চিন। চিন অবশ্য  শুধু সৈন্যসংখ্যা বাড়িয়েই থামছে না। গোটা বাহিনীর প্রশিক্ষণ, অস্ত্রশস্ত্র এবং পরিকাঠামোও উন্নত করা হচ্ছে। বাড়ানো হয়েছে অস্ত্রশস্ত্র এবং সামরিক পরিকাঠামোও। লেফটেন্যান্ট জেনারেলের বদলে এক জন ফোর স্টার পর্যায়ের জেনারেল এ বার থেকে টিবেট মিলিটারি কম্যান্ডের দায়িত্বে থাকবেন বলেও জানা গিয়েছে। বাহিনীর প্রশিক্ষণ, অস্ত্রশস্ত্র ও পরিকাঠামো বদলানো হবে।