বেজিং: বিশ্বজুড়ে চলছে মহামারীর সঙ্গে মোকাবিলা। করোনা নামের সেই ঘটনার সূত্রপাত চিন থেকে। আর সেই চিনেই এখন জোরকদমে চলছে মিলিটারি ড্রিল বা সামরিক মহড়া। চিনের সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস’-এ প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, গত শুক্রবার তাইওয়ানের দ্বীপের কাছে চালিয়েছে চিন। আকাশপথে একাধিক যুদ্ধবিমান দিয়েছে সে দেশের বিমান বাহিনী। আর এটাই প্রথম বার নয়, জানুয়ারি মাসের পর থেকে এই নিয়ে পরপর চারবার যুদ্ধবিমানের মহড়া চালাল চিন।

সেই মহড়ায় অংশ নিয়েছিল H-6 bomber, KI-500 aircraft, J-11 fighter jet. তাইওয়ানের দ্বীপের কাছে সমুদ্রের উপর এই লং রেঞ্জের মহড়া চালানো হয় শুক্রবার। জানা গিয়েছে বাসি চ্যানেলের উপর দিয়ে পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে দিকে এগিয়ে যায় চীনের বিমান গুলি। এরপর একই রাস্তায় আবার বিমান ঘাঁটিতে ফিরে আসে।

চিনের মিলিটারি এক্সপার্ট সং ঝংপিং গ্লোবাল টাইমসকে জানিয়েছেন, তাইওয়ান এর বিরুদ্ধে সামরিক প্রস্তুতি নেওয়ার জন্যই এই মহড়া চালানো হয়। নিয়মিত এই মহড়া চালানো হয় বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

গত জানুয়ারি মাসের পর ৯ ফেব্রুয়ারি যুদ্ধবিমান ও যুদ্ধজাহাজ নিয়ে একটি মহড়া চালানো হয়েছিল, এরপর ১০ ফেব্রুয়ারি যৌথ মহড়া চালানো হয়, ১৬ মার্চ রাতের অন্ধকারে যুদ্ধবিমানের মহড়া চালানো হয়েছিল। এবার চতুর্থ বার সেই মহড়া হল গত শুক্রবার। করোনা ভাইরাস এর মহামারী সত্ত্বেও তাইওয়ানের দ্বীপের কাছে এইসব মহড়া চালা য় চিন।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাস কবে, কোথায় ধরা পড়েছিল সেকথা অবশেষে স্বীকার করে নিয়েছে চিন। মঙ্গলবার চিনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে ডিসেম্বরের শেষে উহান শহরে ধরা পড়েছিল এই ভাইরাস।

বিশ্ব জুড়ে যখন করোনা ভাইরাসের উৎস নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, তখন চিন জানান যে ২০১৯-এর ডিসেম্বরে মাসের শেষে উহান শহরেই প্রথম ধরা পড়ে এই ভাইরাসের সংক্রমণ।

চিনে এই ভাইরাসে ৩,৩৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আ্ক্রান্নত হয়েছে ৮১,৭৪০ জন। চিনে এখনও ১২০০ জনের চিকিৎসা চলছে। বাকিদের চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।