ওয়াশিংটন: চিন যেভাবে তাদের সামরিক শক্তি বাড়িয়ে তুলছে, তা বিশ্বের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একইসঙ্গে আমেরিকার পূর্ববর্তী সরকারকে চিনের এই বাড়বাড়ন্তের জন্য দায়ী করেছেন তিনি।

বর্তমানে চিনের প্রতিরক্ষা বাজের ১৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। একধাক্কায় নিজেদের প্রতিরক্ষা বাজেট ৭% বাড়িয়েছে বেজিং। এবার প্রকাশ্যেই এই নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, ‘গোটা বিশ্বের কাছেই চিন বিপজ্জনক। কারণ, সবচেয়ে দ্রুত সামরিক শক্তি বৃদ্ধি করছে ওরা।’ এরপরই ট্রাম্পের কটাক্ষ, ‘সত্যি বললে, ওরা মার্কিন অর্থ ব্যবহার করছে।’

দক্ষিণ চিন সাগরে মার্কিন-চিন দ্বন্দ্ব নতুন নয়। সেই লড়াইয়ে এগিয়ে থাকতে ইতিমধ্যেই নিজেদের প্রতিরক্ষা বাজেট ৭% বাড়িয়েছে বেজিং। বর্তমানে চিনের প্রতিরক্ষা বাজের ১৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

ট্রাম্পের অভিযোগ, মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে তাঁর পূর্বসূরিরা চিনকে বছরে ৫০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি লুটতে দিয়েছে। ডন বলেন, ‘ওরা চিনকে লুটতে সাহায্য করেছে।’

প্রসঙ্গত, গত মার্চ থেকে মার্কিন-চিন বাণিজ্য যুদ্ধ চলছিল। সম্প্রতি ফের আলোচনার টেবিলে বসেছে ওয়াশিংটন ও বেজিং।

কিছুদিন আগে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হংকং। চিনের এক বিশেষ আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছিল হংকং জুড়ে। সব উড়ানও বন্ধ। এই পরিস্থিতিতে সাবধান করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।