নয়াদিল্লি: গত দেড় মাস ধরে ভারত-চিন সংঘাত চললেও গত এক সপ্তাহে তা চরমে পৌঁছেছে। বিশেষত ২০ ভারতীয় জওয়ান শহিদ হওয়ার পর দেশ জুড়ে চিনকে বয়কট করার রব উঠেছে। আর তারপর থেকেই ওপ পড়েছে চিন থেকে আমদাবি করা দ্রব্যে।

চিন থেকে একাধিক জিনিস আমদানি করা হয় ভারতের বাজারে। যার মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হল ওষুধ। জানা গিয়েছে, গত এক সপ্তাহের মধ্যে একধাক্কায় ৩০ গুন বেড়েছে ওষুধের কাঁচামালের দাম। যার ফলে ওষুধের দাম বেশ খানিকটা বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই উত্তরাখণ্ডের এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বলে সেখানকার ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রির তরফে জানানো হয়েছে।

ভারতের বেশির ভাগ ওষুধই তৈরি হয় উত্তরাখণ্ড ও হিমাচল প্রদেশে। এই দুই রাজ্যের কয়েক’শ ফার্মা সংস্থায়ব ভারতের মোট ওষুধের অর্ধেক তৈরি হয়। বছর কয়েকের মধ্যে ওষুধের ব্যবসা ব্যাপক হারে বাড়বে বলেই আশা করা হচ্ছিল। কিন্তু যেভাবে কাঁচামালের দাম বাড়াতে শুরু করেছে, তাতে ওষুধ ব্যবসা নিয়ে আশঙ্কাই তৈরি হয়েছে। কারণ বেশির ভাগ কাঁচামালই আসে চিন থেকে। চিন থেকেই ওইসব জিনিস সস্তায় পাওয়া যায়।

উত্তরাখণ্ডে অন্তত ১০০ টি ও হিমাচলে ৩০০ টি ওষুধ তৈরির কারখানা ছিল। হরিদ্বারের একটি ওষুধ তৈরির সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, গালওয়ান ভ্যালির ওই ঘটনার পর থেকেই চিন কাঁচামালে দাম বাযাতে শুরু করেছে। এই পরিস্থিতির সুযোগ নিতে চিন এই কাজ করছে বলে জানিয়েছেন তিনি। আপাতত কোনও অপশন না থাকায় বেশি দাম দিয়ে ওই কাঁচামাল কিনতে হচ্ছে, তাই ওষুধের দাম স্বাভাবিকভাবে বাড়বে বলেও মনে করছেন তিনি। তাঁর কথায়, কাঁচামালের আমদানির ক্ষেত্রে চিনের যে আধিপত্য আছে, তার কাছে ভারতের এই ওষুধ সংস্থাগুলি কার্যত অসহায়।

শুধু তাই নয়, সাপ্লায়াররা ওই জিনিসের জন্য অগ্রিম টাকা চাইছে। কয়েকদিন পরে তারও আরও নানা রক শর্ত দেবে বলেও আশঙ্কা করছে ওষুধ তৈরির সংস্থাগুলি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যবসায়ূ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে ওষুধ তৈরোর ৮০ শতাংশ কাঁচামাল আসে চিন থেকে, তাই চিনা দ্রব্য বয়কট করা এইসব সংস্থার ক্ষেত্রে অবাস্তব চিন্তাভাবনা। কারণ আমেরিকা বা ইউরোপ থেকে কাঁচা মাল আনার খরচ দ্বিগুণ।

প্যারাসিটামল ও একাধিক অ্যান্টি বায়োটিকের কাঁচামাল আসে চিন থেকে। উত্তরাখণ্ডের রুদ্রপুরের আরও এক সংস্থার কর্ণধার বলেন, মানুষ যেভাবে চিনা দ্রব্য বয়কট করা কথা ভাবছে, তার থেকে বাস্তবটা একেবারে আলাদা।

Pharmaceutical Manufacturers Association-এর প্রেসিডেন্ট অনিল শর্মা জানিয়েছেন, গত কয়েকদিনে কাঁচামালের দাম বেড়েছে। তিনি আরও বলেন, মানুষের আবেগের সঙ্গে বাস্তবের কোনও সম্পর্ক নেই। এতে অনেক খারাপ প্রভাব পড়ছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ