বেজিং: সম্প্রতি বাংলাদেশ নিষিদ্ধ করেও ফের ফিরিয়ে এনেছে জনপ্রিয় ভিডিও গেম৷ কিন্তু কড়া ভূমিকায় চিন সরকার৷ অপ্রাপ্তবয়স্কদের অনলাইন গেম খেলার ওপর কারফিউ জারি করা হয়েছে এই দেশে৷ খবর বিবিসির৷এর ফলে যাদের বয়স ১৮ বছরের কম, তারা রাত দশটা থেকে সকাল আটটার মধ্যে কোনও অনলাইন গেম খেলতে পারবে না। চিন বিশ্বে অনলাইন ভিডিও গেমিং এর দ্বিতীয় বৃহত্তম বাজার হিসেবে পরিচিত৷

নিয়মে বলা হয়েছে, সারা সপ্তাহ জুড়ে সারা দিনে দেড় ঘন্টার বেশি ও সাপ্তাহিক ছুটি বা অন্য ছুটির দিনে তিন ঘন্টার বেশি এই ধরণের গেম খেলা যাবে না। বিবিসি জানাচ্ছে, ভিডিও গেমের প্রতি প্রবল আসক্তি দেখা গিয়েছে চিনা শৈশব ও কিশোরদের মধ্যে৷ এই আসক্তি কাটাতেই কড়া ভূমিকা নিয়েছে সরকার৷ । বিভিন্ন ভিডিও গেম শিশুদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি করছে বলে মনে করছেন বিষেজ্ঞরা৷

বিবিসি জানাচ্ছে ২০১৮ সালে চিন সরকার অনলাইন গেম নিয়ন্ত্রণ করতে সংস্থা গঠন করে। তড়িঘড়ি এই নিষেধাজ্ঞার ধাক্কায় চিনে ৯ মাস বন্ধ ছিল বিভিন্ন ভিডিও গেম৷ এই পদক্ষেপ অনলাইন গেম বাজারের উপর বিশেষ প্রভাব ফেলে৷ কারণ চিনা বাজারের বিপুলতা৷

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন,শিশুদের মধ্যে দৃষ্টিক্ষীণতার সমস্যা বেড়ে যাওয়ার পর চিন সরকার এই পদক্ষেপ নেয়। অতিরিক্ত গেম খেললে এমন হতে পারে বলেই আশংকা৷

ইতিমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রথম বারের মতো গেমিং-এর আসক্তিকে একটি মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে। তারপরেই নড়েচড়ে বসে চিনা সরকার৷ নিষেধাজ্ঞা জারি করে বলা হয়, অন লাইন গেম খেলতে হলে ব্যবহারকারীদের বয়স আগে যাচাই করতে হবে৷ তারপরে আইনের আওতায় সবটা খতিয়ে দেখতে হবে৷ এর জন্য সরকারি তথ্যভাণ্ডার থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে সরকার৷

বিবিসি জানাচ্ছে, বড় বড় ভিডিও গেম কোম্পানি চিনের এসব পদক্ষেপে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে। কিছু সমস্যা রয়েছে।