বেজিংঃ  নতুন করে ফের উত্তেজনা আমেরিকা এবং চিনের মধ্যে। একদিকে যখন বাণিজ্য যুদ্ধ নিয়ে উত্তাল দুই দেশ। সেই সময়ে ফের আরও একবার দক্ষিণ চিন সাগরে মার্কিন ডেস্ট্রয়ার পাঠাল আমেরিকা। আর দক্ষিণ চিন সাগরে এভাবে মার্কিন যুদ্ধজাহাজের উপস্থিতির বিষয়ে আবারও আমেরিকাকে সতর্ক করল চিন।

চিনের বিদেশমন্ত্রকের একজন মুখপত্র জানিয়েছে, দক্ষিণ চিন সাগরে ডেস্ট্রয়ার পাঠিয়ে দেশের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করেছে আমেরিকা। সেই হুঁশিয়ারি উড়িয়ে আগেই মার্কিন সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্রে সজ্জিত ডেস্ট্রয়ার “ইউএসএস প্রেবল” দক্ষিণ চিন সাগরে পাঠানো হয়েছে। গত এক মাসে দক্ষিণ চিন সাগরে এটি আমেরিকার দ্বিতীয় সামরিক তৎপরতা।

দক্ষিণ চিন সাগরের দ্বীপগুলোর মালিকানা নিয়ে বেজিং-র সঙ্গে তাইওয়ান, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন ও ব্রুনেই’র বিরোধ রয়েছে। বেজিং দক্ষিণ চিন সাগরের ৯০ শতাংশের মালিকানা দাবি করে আসছে। এখানকার দ্বীপগুলো তেল এবং গ্যাস সম্পদে সমৃদ্ধ। আর এমন প্রাকৃতিক সম্পদের যেখানে হদিশ রয়েছে সে জায়গা কি ছাড়তে পারে আমেরিকা! আর সেজন্যে বারবার উত্তেজনা বাড়িয়ে সেই জায়গায় যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে আমেরিকা। বিশেষত তাইওয়ান, ভিয়েতনামের মতো দেশগুলির পাশে থাকার বার্তা দিয়ে এহেন কাজ করে যাচ্ছে মার্কিন নৌবাহিনী। আর তাতেই ক্ষুব্ধ লালচিন।