তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: গোপন সূত্রে খবর পেয়ে নাবালিকার বিয়ে রুখল চাইল্ড লাইন। ঘটনাটি বাঁকুড়ার ওন্দা থানা এলাকার কুমারডাঙ্গা গ্রামের।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা রোড সংলগ্ন দেউলবেড়িয়া গ্রামের চোদ্দ বছর বয়সী নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে বাঁকুড়ার তালডাংরা থানা এলাকার সাতমৌলি গ্রামের এক যুবকের বিয়ে ঠিক হয়। মঙ্গলবার ওই ছাত্রীর মামা বাড়ি ওন্দা থানার কুমারডাঙ্গা গ্রামে বিয়ে বাড়ির আয়োজন করা হয়েছিল। এই খবর বাঁকুড়ার চাইল্ড লাইনের কর্মীদের কাছে পৌঁছায়৷ এরপরই ওন্দা থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে ওই নাবালিকার মামা বাড়ি কুমারডাঙ্গা গ্রামে পৌঁছে যান।

পুলিশ ও চাইল্ড লাইনের কর্মীরা কম বয়সে বিয়ে দিলে কি সমস্যা হতে পারে সেই বিষয়ে পরিবারের লোকেদের বোঝান। তারা আলাদা আলাদাভাবে কথা বলেন ওই নাবালিকা ও তার মায়ের সঙ্গে। পরে ওই নাবালিকার মা পুলিশ ও চাইল্ড লাইনের কর্মীদের কাছে এখনই মেয়ের বিয়ে না দেওয়ার বিষয়ে মুচলেকা দিয়েছেন বলে জেলা চাইল্ড লাইন সূত্রে জানানো হয়েছে।

বাঁকুড়া জেলা চাইল্ড লাইনের সদস্য শুভ্র শীট, সুমন্ত বাউরীরা বলেন, এই নাবালিকার বিয়ের খবর পেয়েই ওন্দা থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে তার মামা বাড়িতে পৌঁছাই। মা ও মামাকে চাইল্ড লাইনের তরফ থেকে বোঝানো হয়। তাছাড়া যে ছেলেটির সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক হয়েছিল তার বয়সও অনেক বেশি৷ কম বয়সে বিয়ে দিলে ও একজন কম বয়সী মেয়ের সঙ্গে বেশি বয়সের ছেলের বিয়ে দিলে কি সমস্যা হতে পারে তা জানানো হয়। সব শুনে তার মা আঠারো বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকা দিয়েছেন বলে তারা জানান।