প্রতীকী ছবি

মুর্শিদাবাদ: টাকা চুরির অভিযোগে এক নাবালককে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল এক দোকান মালিকের বিরুদ্ধে৷ সেই মারধরের ফুটেজ দেখলে শিউরে উঠবে যে কেউ৷ মাত্র ৪০০ টাকার জন্য ওইটুকু বাচ্চার সঙ্গে এমন অমানবিক যে কেউ হতে পারে তা কল্পনাতীত৷ এবং আরও অবাক করেছে উৎসাহী জনতার আচরণ৷ ওই নাবালককে হাত, পা আটকে মোটা লাঠি দিয়ে মারধর করা হলেও বাধা দিতে এগিয়ে আসেননি কেউ৷

বৃহস্পতিবার নারকীয় এই ঘটনার সাক্ষী থাকল মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ অন্তরদীপা গ্রাম৷ যে হোটেল মালিকের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ তাঁর নাম সফিকুল ইসলাম৷ সফিকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, এই মারধরের ঘটনার ভিডিও মোবাইল ফোন বন্দি করে তা সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেন৷

আরও পড়ুন: বিজেপির শিবরাজ্যে ন্যান্সির টয়লেট এক প্রেমকথা

স্থানীয়রা জানান, এদিন সকালে মহিম শেখ (নাম পরিবর্তিত) নামে দশ বছরের এক নাবালক স্থানীয় বাজার দিয়ে যাওয়ার সময় একটি খাওয়ার দোকানে ঢোকে৷ সেই দোকানেরই মালিক সফিকুল ইসলাম৷ দোকান মালিক অভিযোগ তোলেন, তাঁর দোকান থেকে টাকা চুরি করেছে ওই নাবালক৷ সে সুরে সুর মেলান দোকান মালিকের সঙ্গীরাও৷

অভিযোগ, এরপরই ওই নাবালকের হাত, পা আটকে মারধর শুরু হয়৷ বাচ্চাটির পিঠের চামড়া তুলে নেয় দোকান মালিক৷ ভিডিওটি ছড়াতে নিন্দার ঝড় ওঠে৷ যদি সত্যিই চুরির ঘটনা ঘটে থাকে সেক্ষেত্রে পুলিশে কেন খবর দেওয়া হল না৷ দোকান মালিক নিজের হাতে কেন আইন তুলে নিলেন উঠছে প্রশ্ন৷

সামশেরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিত নাবালকের পরিবার৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সামশেরগঞ্জ থানার পুলিশ৷ আহত শিশুটিকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীতে বাজছে লুঙ্গি ডান্স! নাচছেন অধ্যাপকরা